ভ্লাদিমির পুতিন মহাকাশযাত্রা বিদ্যা দিবসে আমুর প্রদেশে “ভস্তোচনি” কসমোড্রোম পরিদর্শন করেন. সেখানে তিনি ভিডিও-যোগাযোগের মাধ্যমে আন্ত৪জাতিক মহাকাশ স্টেশনের মহাকাশচারীদের সাথে কথা বলেন, উত্সব উপলক্ষে তাঁদের অভিনন্দন জানান এবং তাছাড়া সেখানে তিনি মহাকাশ ক্ষেত্রের বিকাশ সংক্রান্ত একসারি প্রশ্ন আলোচনা করেন. রাষ্ট্রপতি বলেন যে, মহাকাশের আত্তীকরণে নিজের ভূমিকায় দেশ গর্ব অনুভব করতে পারে. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, এ ক্ষেত্রের কর্মীদের নিজেদের কাজ সম্পর্কে যোগ্যতা, পেশাগত প্রস্তুতি এবং দায়িত্বপূর্ণ দৃষ্টিভঙ্গীর উপর প্রত্যক্ষভাবে নির্ভর করছে গোটা রকেট-মহাকাশ ক্ষেত্রের কাজ, আর তার অর্থ, “মহাকাশ সংক্রান্ত শক্তি হিসেবে রাশিয়ার স্থিতি বজায় রাখা, তার বিশ্বস্ত সামাজিক-অর্থনৈতিক, নবায়নী বিকাশ এবং দেশের জাতীয় নিরাপত্তার সুনিশ্চিতি”. আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের সাথে ভিডিও-যোগাযোগের সময় পুতিন উল্লেখ করেন যে, মহাকাশ হল রুশ-মার্কিন সম্পর্কের একটি মিলিত কার্য ক্ষেত্র, যা পরস্পর বৈপরীত্য থেকে মুক্ত. দুর-প্রাচ্য ফেডারেল অঞ্চলে কর্ম সফরের সময় রাষ্ট্রপতি “ভস্তোচনি” কসমোড্রোম পরিদর্শন করেন. এ কসমোড্রোম মানবচালিত মহাকাশযাত্রার পরিপ্রেক্ষিতপূর্ণ কর্মসূচির কর্তব্য সাধন করবে, রাষ্ট্রীয়, আন্তর্জাতিক ও কমার্শিয়াল কর্মসূচি অনুযায়ী বিভিন্ন উদ্দেশ্যের স্বয়ংক্রিয় মহাকাশযান ক্ষেপণ করবে. তাছাড়া, তা মহাকাশ, নক্ষত্র ও সৌর মণ্ডলের গভীর অধ্যয়ন ও আত্তীকরণের জন্য, বড় পরিসরের মহাকাশ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করবে. আশা করা হচ্ছে যে, ২০১৫ সালে নির্মাণ শেষ হওয়ার পর “ভস্তোচনি” কসমোড্রোম মুখ্য সব কর্তব্য নিজের উপর গ্রহণ করবে, যা বর্তমানে করছে “বাইকোনুর” কসমোড্রোম.