পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতির পদে ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ক্ষমতাসীন থাকা জেনারেল পারভেজ মুশারফ সি-এন-এনকে প্রদত্ত সাক্ষাত্কারে স্বীকার করেছেন, যে কোনো বিশেষ ক্ষেত্রে চালকবিহীন ড্রোন থেকে পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আঘাত হানার অনুমতি তার অধীনস্থ সরকার দিয়েছিল. এতদিন পর্যন্ত পাকিস্তানের কর্তৃপক্ষ আমেরিকার ড্রোন থেকে আঘাত করার সঙ্গে কোনোরকম ভাবে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে আসছিল, যা দেশবাসীর প্রবল অসন্তোষের কারণ হয়েছে.

মুশারফ বলেছেন, যে সরকার “শুধুমাত্র কোনো কোনো ক্ষেত্রে আঘাত হানার অনুমতি দিয়েছিল, যেখানে ঘটনাচক্রের কোনো ঝুঁকি থাকবে না”. জেনারেলের কথায়, আক্রমণ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল সেনাবাহিনীর সাথে আলোচনা করার পরই এবং শুধু তখন, “যখন আমাদের নিজস্ব বাহিনী সময়ে কুলিয়ে উঠতে পারছিল না”.

বৃটেনের অবাণিজ্যিক সংস্থা সাংবাদিক তদন্ত ব্যুরোর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, পাকিস্তানে ড্রোন থেকে আঘাতে ২৬০০ থেকে ৩৪০০ মানুষ নিহত হয়েছে, যাদের মধ্যে ৪৭০ থেকে ৮৯০ জন ছিল নিরপরাধ অধিবাসী.