রাশিয়া মনে করে যে, আন্তর্জাতিক পরমাণু সংস্থার তদারকির সাথে ইউরেনিয়াম পরিশোধনসহ ইরানের সব ধরণের অধিকার মেনে নেওয়া উচিত। কাজাখস্তানের আলমা-আতে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে দেশটির সঙ্গে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য ও জার্মানির সাথে আলোচনা শেষে রাশিয়ার উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই রিয়াকোভ সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, 'আলোচনা অত্যন্ত বিস্তৃত পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে যদিও অংশগ্রহণকারীরা কোনো সুনির্দিষ্ট মতৈক্যে পৌঁছাতে পারেন নি।' রিয়াকোভ উল্লেখ করেন, ছয় বিশ্ব শক্তির মধ্যে পশ্চিমা অংশগ্রহণকারী দেশগুলো ইরানের প্রতি কোন এক কারণে অসন্তুষ্ট মনোভাব পোষন করে আছেন। ‘পি৫+১’ নামে পরিচিত ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের পরবর্তি সাক্ষাতের সময় ও স্থান নির্ধারণ করা হয় নি। তবে, অতি শিঘ্রই এ সংক্রান্ত একটি ঘোষণা আসবে বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ)পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক প্রধান ক্যাথরিন অ্যাশটন সাংবাদিকদের বলেন, 'আলমা-আতের এ বৈঠকে এবারই প্রথম ইরানের পরমাণু সমস্যা নিয়ে ছয় বিশ্ব শক্তি ও তেহরানের মধ্যে কার্যকরী মতামত বিনিময় হয়েছে।' ইরানের প্রধান আলোচক সাঈদ জলিলির সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার আগ্রহের কথা জানান তিনি।