0আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশ” ইরানের শান্তিপূর্ণ পরমাণুর অধিকারকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত, যদি তেহেরান আন্তর্জাতিক জনসমাজের কাছে তার শান্তিপূর্ণ চরিত্র প্রমাণ করতে পারে. এ সম্বন্ধে আলমা-আতা আলাপ-আলোচনায় বলেছেন ইউরোপীয় কূটনীতির প্রধান ক্যাথ্রিন অ্যাশটনের প্রতিনিধি মাইকেল মান. তাছাড়া, তিনি বলেন যে, মধ্যস্থরা ইরানের কাছ থেকে তাকে আগে দেওয়া প্রস্তাবে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষা করছে. ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে ছয়পাক্ষিক (রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য পাঁচটি দেশ ও জার্মানি)আলাপ-আলোচনার পরবর্তী রাউন্ড শুক্রবার শুরু হয়েছে কাজাখস্তানের আলমা-আতায়. এ আলাপ-আলোচনায় সঙ্গতি সাধনের ভূমিকা পালন করছেন ইউরোপীয় কূটনীতির প্রদান ক্যাথ্রিন অ্যাশটন. ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সংক্রান্ত সমস্যার মীমাংসা নিয়ে আলাপ-আলোচনার আগের রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়েছিল আলমা-আতায় ফেব্রুয়ারীর শেষে. “ছয় দেশ” তাতে নবীকৃত কিছু প্রস্তাব পেশ করেছে, যা তেহেরানের তরফ থেকে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া জাগিয়েছে. কূটনীতিজ্ঞদের খবর অনুযায়ী, ইরান নিষেধাজ্ঞা লাঘব করার পরিবর্তে ২০ শতাংশ পর্যন্ত ইউরেনিয়ামের পরিশোধন ছয় মাসের জন্য স্থগিত রাখার প্রস্তাব নিয়ে ভাবছে. তাছাড়া, তেহেরান ২০ শতাংশ পর্যন্ত পরিশোধন করা ইউরেনিয়ামের সঞ্চয় ইউরেনিয়াম অক্সাইডে রূপান্তরিত করার বিষয় বিবেচনা করছে, যা শুধু চিকিত্সা বিজ্ঞানে ব্যবহারের জন্যই উপযুক্ত.