১৫ই মার্চের পরে এই প্রথম মঙ্গলবার সাইপ্রাসের শেয়ার মার্কেট চালু হয়েছে, বলে তাদের নিজস্ব সাইটে জানানো হয়েছে. যতক্ষণ পর্যন্ত সাইপ্রাসের সরকারের সাথে সম্মিলিতভাবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ও ইউরো সংঘ ঐ দ্বীপের আর্থিক সংকটের সুরাহার পথ খুঁজছিল, ততদিন শেয়ার মার্কেট বন্ধ ছিল. স্থানীয় ব্যাঙ্কগুলিতে জমানো সব অর্থের ওপর কর বসানোর প্রাথমিক ইচ্ছা সংবরণ করে একলক্ষ ইউরোর বেশি অঙ্কের মজুত অর্থ থেকে ৪০ থেকে ৮০% বাজেয়াপ্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সাইপ্রাসের সরকার. এর ফলে বিনিয়োগকারীদের কোটি কোটি ইউরো ক্ষতি হয়েছে এবং আন্তর্জাতিক আর্থিক কেন্দ্র হিসাবে সাইপ্রাসের ভাবী অস্তিত্বই বিপন্ন হয়ে পড়েছে.