ইরাকের কর্তৃপক্ষ উদ্বিগ্ন যে, সিরিয়ায় সঙ্ঘর্ষ নিয়ন্ত্রণাতীত হয়ে উঠতে পারে এবং তাঁদের দেশেও ছড়িয়ে পড়তে পারে, বৃহস্পতিবার লিখেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের “ওয়াশিংটন পোস্ট” পত্রিকা. ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি আলি আল-মুসাওই বলেন যে, সিরিয়ার সঙ্কট যদি এ অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে ইরাক. জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ফালাহ আল-ফৈয়াদ নিজের তরফ থেকে বলেছেন যে, সিরিয়ায় “আল-কাইদা” এবং অন্যান্য সন্ত্রাসবাদী দলের প্রভাব বৃদ্ধিতে হুঁশিয়ার থাকা উচিত্. “ওয়াশিংটন পোস্ট” পত্রিকার তথ্য অনুযায়ী, সিরিয়ার ভূভাগে তত্পর রাডিক্যাল ইস্লামিক দল “ফ্রন্ট আন-নুসরা” ইরাকে “আল-কাইদার” শাখার সাথে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত. এ ফ্রন্টের প্রতিনিধিরা বলছে যে, দামাস্কাস দখলের পর তারা যাবে বাগদাদে, যাতে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী নুরী আল-মালিকি-কে উত্খাত করা যায়, লিখেছে পত্রিকাটি.