নিরাপত্তা পরিষদের ঠিকানায় পাঠানো বার্তায় জাতিসংঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন লিখেছেন, যে বর্তমানে মালিতে মোতায়েন আফ্রিকান সংঘের সশস্ত্র শক্তিকে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষক বাহিনীতে পরিণত করা যেতে পারে, যেখানে ১১ হাজারেরও বেশি সামরিক কর্মী থাকবে. বান কি মুনের চিন্তাধারা অনুযায়ী, শান্তিরক্ষকরা মালির মুখ্য জনবসতি কেন্দ্রগুলির নিরাপত্তা সুরক্ষা করবে, যেখানে সংঘর্ষ বাঁধবার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি এবং যেখানে রাষ্ট্রীয় শক্তির দরকার বাড়তি শক্তি, স্থিতিশীলতা ও রাষ্ট্রীয় আইন জারি করার জন্য. সামরিক, অসামরিক ও পুলিশ কর্মীরা কাজ করবে মালির উত্তরাঞ্চলে. শান্তিরক্ষকদের পরিবহন শিবির বসানো হবে হয় গাওতে অথবা সেভারে. তাছাড়াও, শান্তিরক্ষকদের একাংশ জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধির নেতৃত্বে মোতায়েন থাকবে দেশের রাজধানী বামাকোয়. ২০১২ সালের ডিসেম্বরে জাতিসংঘ মালির উত্তরাঞ্চলে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে আফ্রিকার দেশগুলি থেকে এক বছরের জন্য ৩৩০০ সামরিক কর্মীকে সেখানে পাঠানো মঞ্জুর করেছিল.