ব্রিকস গোষ্ঠী – ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকা - বণিক সমাজের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা শুরু করছে. ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে ঘোষণা করা হতে চলেছে বণিক সভা গঠনের কথা. তার মুখ্য কাজ হবে বহু পাক্ষিক বিনিয়োগ প্রকল্প গুলিকে বাস্তবায়িত করা, এই কথা ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী ইউরি উশাকভ. অন্যান্য যে সব বিষয় নিয়ে এই শীর্ষ সম্মেলনে আশা করা হয়েছে – তার মধ্যে রয়েছে ব্রিকস উন্নয়ন ব্যাঙ্কের সৃষ্টির প্রসঙ্গ.

এই বছরের শীর্ষ সম্মেলনের বিষয়: ব্রিকস ও আফ্রিকা – সমাকলন, শিল্পায়ন ও উন্নয়নের লক্ষ্যে সহযোগিতা. এই প্রসঙ্গে ব্রিকস গোষ্ঠীর নেতারা বিশেষ অধিবেশনে আফ্রিকার দেশ গুলির প্রধান ও সংস্থা গুলির প্রধানদের সঙ্গে যোগ দেবেন. রাশিয়ার তরফ থেকে এই সাক্ষাত্কারে একই সঙ্গে থাকছেন পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভ ও রাষ্ট্রপতির আফ্রিকা সংক্রান্ত বিশেষ প্রতিনিধি মিখাইল মার্গেলভ. ব্রিকস গোষ্ঠীর নেতারা আফ্রিকার রাষ্ট্র নেতাদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সাক্ষাত্কারও করবেন.

২৬শে মার্চ ভ্লাদিমির পুতিন দেখা করবেন দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি জ্যাকব জ্যুমার সঙ্গে. সেই দিনই সন্ধ্যায় ভ্লাদিমির পুতিনের ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহের সঙ্গে দেখা হওয়ার কথা রয়েছে. এই শীর্ষ সম্মেলনে নিমন্ত্রিত ইজিপ্টের নেতা মোহাম্মেদ মুর্সির সঙ্গে ভ্লাদিমির পুতিনের দেখা হওয়ার কথা ২৭শে মার্চ. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির প্রশাসনিক দপ্তর থেকে উল্লেখ করা হয়েছে যে, মস্কো ও কায়রোর মধ্যে ইতিমধ্যেই বহুদিন ধরে শীর্ষ পর্যায়ে কোন যোগাযোগ হয় নি, তাই ডারবানে সাক্ষাত্কারের বিষয়ে বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়েছে. পুতিন ও মুর্সি দ্বিপাক্ষিক আলোচ্য বিষয় নিয়ে কথা বলবেন, আর তারই সঙ্গে নিকট প্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা ও সিরিয়ার সঙ্কট নিয়েও কথা হবে.

এই শীর্ষ সম্মেলনের প্রধান অনুষ্ঠান শুরু হতে চলেছে ২৭শে মার্চ নেতাদের সঙ্গে ব্যবসায়িক মহলের বিজনেস ব্রেকফাস্ট দিয়ে. আর এই দিনেই ঘোষণা করা হতে পারে ব্রিকস বণিক সভা গঠনের কথা. তা রাশিয়ার উদ্যোগে তৈরী করা হচ্ছে ও ব্রিকস দেশ গুলির সরকারের সঙ্গে বণিক মহলের সরাসরি আলোচনার জন্য ক্ষেত্র হতে যাচ্ছে. প্রত্যেক দেশ থেকেই এই সভায় পাঁচজন করে প্রতিনিধি থাকবেন. আর এই সভা কাজ করবে সকলের সমানাধিকার রয়েছে এমন ভিত্তিতে, কোন রকমের নেতৃত্ব আলাদা করে তৈরী না করে.

ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনের একটি পরিণতি, যা আশা করা হয়েছে – তা হল উন্নয়ন ব্যাঙ্ক তৈরী হওয়ার ঘোষণা. এই বিষয় আগের বছর গুলিতেও তোলা হয়েছে, আর বর্তমানের শীর্ষ সম্মেলন একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করার কথা. আগেও যেমন বলা হয়েছে, বিশেষজ্ঞ স্তরে এই ব্যাঙ্ক তৈরী করা নিয়ে সমস্ত কাজ ইতিমধ্যেই করা হয়েছে, এবারে সমস্ত কিছু নির্ভর করছে ব্রিকস গোষ্ঠীর নেতাদের উপরে. মস্কো শহরে আশা করা হয়েছে যে, ইতিবাচক সিদ্ধান্ত এবারে নেওয়া হবে, এই রকমই বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী ইউরি উশাকভ.