রাশিয়ায় রাষ্ট্রীয় সফর সব আশা আকাংখার পূরণ ঘটেছে। ঠিক এভাবেই চীনের চেয়ারম্যান শি জিনপিন মস্কোতে নিজের প্রথম সফরের সার-সংক্ষেপ বর্ণনা করেছেন। রাশিয়ার রাজধানীতে চীনা নেতা বেশ ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করেন। শি জিনপিন তাঁর এ সফরে রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে দ্বিপাক্ষীক বৈঠকে মিলিত হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ, রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্ন ও উচ্চ কক্ষের স্পিকার সেরগেই নারিশকিন ও ভালেনতিনা মাতভিনেনকা ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেরগেই শাইগুর সাথে সাক্ষাত করেছেন। শি জিনপিনই হলেন প্রথম বিদেশী রাষ্ট্রনেতা যিনি রুশ আর্মির প্রধান কমান্ডারের কার্যালয়ের প্রবেশপথ উন্মক্ত ছিলো। নতুন প্রজন্মের সাথেও দেখা করেন চীনা নেতা। মস্কো কূটনৈতিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশ্যে লেকচার দেন তিনি।

চীনের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর শি জিনপিনের প্রথম বিদেশ সফরের দেশ হলো রাশিয়া। সেই সাথে পুরো বিশ্বের কাছে পরিষ্কার একটি সংকেত জানিয়ে দেওয়া হলো যে, রাশিয়ার সাথে বেইজিংয়ের সম্পর্ক বিশেষ চরিত্র বহন করে।মস্কো তার প্রমাণ রেখেছে। দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠকের শুরুতেই ভ্লাদিমীর পুতিন বলেন, এ সফর অবশ্যই রাশিয়া-চীন সম্পর্কের ইতিহাসে নতুন অধ্যায়ের সূচনা করবে। পুতিন বলেন, “গনচীনের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় আপনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। আপনার প্রথম বিদেশ সফর হিসেবে আমাদের দেশকে নির্বাচিত করাই আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। রাশিয়া ও চীন একে অপরের সাথে সম্পর্ক নির্মাণে কতোটা গুরুত্ব দিচ্ছে তাই প্রকাশ করছে। এ সম্পর্ক আজ আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে. আমি বিশ্বাস করি, সম্মানিত চীনা চেয়ারম্যান, আপনার এ সফর রুশ-চীন সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন শক্তি জোগাবে।”

এ সফরে দুই দেশের বিভিন্ন খাতে একসারি চুক্তিপত্র সই হয়েছে। রাশিয়ার দূরপ্রাচ্যে বিনিয়োগ করার জন্য রাশিয়ার শীর্ষ বাংক, বিনিয়োগ তহবিল ও রুশ-চীন বিনিয়োগ তহবিলের মধ্যে চুক্তি সই হয়েছে। স্ট্রাটেজিক খাত হিসেবে মূল্যায়ন করা হয়েছে জ্বালানীকে। রাশিয়ার প্রাকৃতিক গ্যাস চীনে সরবরাহের সম্ভাবনা যাচাই করতে গাসপ্রোম ও চীনা তেল-গ্যাস কর্পোরেশন সিএনপিসি’র মধ্যে সমযোতা চুক্তি হয়েছে। এ বিষয়ে গ্রাসপ্রোমের প্রধান আলেক্সেই মিলার বলেন, চুক্তিপত্র কৌশলগত চরিত্র বহন করছে। পূর্বের সাইবেরিয়ার শক্তি গ্যাস পাইপ লাইন থেকে রাশিয়ার গ্যাস চীনে সরবরাহ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। প্রকল্পের মেয়াদ ৩০ বছর পর্যন্ত করার বিষয়ে কথা হয়েছে। ২০১৮ সালে গ্যাস সরবরাহ করা শুরু হবে। শুরুতে বছরে রাশিয়া থেকে ৩৮ বিলিয়ন কিউবিক মিটার গ্যাস চীনে সরবরাহ করা হবে এবং ধীরে ধীরে তা ৬০ বিলিয়ন কিউবিক মিটারে উন্নীত করা হবে।

রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেরর সাথে শি জিনপিন একান্ত সাক্ষাতে মিলিত হয়েছেন। সাংবাদিকদের কাছে চীনা নেতা বলেন, রাশিয়া সফর ফলপ্রসু হয়েছে। চীনা স্বপ্ন এর মানে তাঁর কাছে কি, তা নিয়ে মস্কো কূটনৈতিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীদের উদ্দ্যেশ্যে দেওয়া লেকচারে শি জিনপিন বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, মহান চীনা জাতীর পূণঃজন্ম প্রতিষ্ঠা করাই চীনের জনগনের কাছে এ যুগের স্বপ্ন। আমরা একেই চীনা স্বপ্ন বলে থাকি। এ স্বপ্ন হচ্ছে শক্তির, জাতীয়তা পূণঃপ্রতিষ্ঠা ও জনগনের জীবণযাত্রার মান উন্নয়ন করা। বিগত শতকে চীনের জনগন অনেক ত্যাগ, দেশের ভিতরে অনেক কিছু হারানোর ব্যাথা আর বহিঃশক্তির আগ্রাসন মোকাবেল করেছে। শান্তির জন্য কি প্রয়োজন জনগন তা ভাল করে জানে. জনগনের জীবণের মান উন্নয়নের জন্য আমাদের প্রয়োজন শান্তিময় সহবস্থান।

মস্কো ও বেইজিং এর মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে শি জিনপিন বলেন, বিশ্বে আজ এর চেয়ে ঘনিষ্ঠ শরিক সম্পর্ক আর নেই। এ সম্পর্ক নিয়েই চীনা নেতা আখ্যায়িত করেন একটি লাইন দিয়ে “চিরকাল বন্ধু ও কথনোই শত্রু নয়”।