0ব্রিকস (রাশিয়া, ভারত, চীন, ব্রাজিল এবং দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র) কারুরই বিরুদ্ধে নিজেকে স্থাপনের চেষ্টা করছে না. দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের ডারবান শহরে ২৬-২৭শে মার্চ অনুষ্ঠিতব্য শীর্ষ সম্মেলনের প্রাক্কালে এ সম্বন্ধে “রেডিও রাশিয়াকে” প্রদত্ত এক ইন্টারভিউতে বলেছেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকোভ. তিনি বলেন, “আমরা ব্রিকস গোষ্ঠীর ক্রমবর্ধমান মর্যাদা ও প্রভাবের কথা বলছি, যা সন্দেহাতীত. তবে, তার অর্থ এ নয় যে আমরা কাউকে চ্যালেঞ্জ করছি. বিশ্ব অর্থনীতি ও রাজনীতিতে পরিস্থিতির পরিবর্তনের সাথে আমাদের নিজেদের স্বার্থ বিকাশের জন্য এটা প্রয়োজন”. রাশিয়া ও চীনের সম্পর্কের কথায় এসে তিনি তাকে অগ্রণী স্ট্র্যাটেজিক শরিকানা হিসেবে বর্ণনা করেন. তিনি বলেন, “রাশিয়া ও চীনের কোনো বড় অসমাধিত সমস্যা নেই”. তিনি এ বিষয়ের প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করেন যে, চীনের নতুন রাষ্ট্রনেতা সি জিনপিন নিজের প্রথম বিদেশ সফরের স্থান হিসেবে বেছে নিয়েছেন রাশিয়াকেই, আর তা আমাদের উভয় দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ. সেই সঙ্গে, ব্রিকস মঞ্চে রাশিয়া ও চীন রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সবচেয়ে ফলপ্রসূভাবে সহযোগিতা করতে পারে, মনে করেন রিয়াবকোভ.