ভারত বুধবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, জেনেভায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানব অধিকার পরিষদে যে শুনানী চলছে তাতে সে কঠোর সিদ্ধান্তের সমর্থন করবে, জানিয়েছে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ এজেন্সি. আশা করা হচ্ছে যে, দিল্লি সমর্থন করবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খসড়া সিদ্ধান্ত, যাতে দাবি করা হয়েছে সামরিক অপরাধ সম্পর্কে তদন্ত চালানোর, রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষজ্ঞদের মতে, যে অপরাধ শ্রীলঙ্কায় সাধিত হয়েছিল ২০০৯ সালে তামিল-এলাম মুক্তি টাইগার আন্দোলনের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের সময়. জেনেভায় ভোটদান হবে বৃহস্পতিবার. ভারতের অর্থমন্ত্রী শ্রী পি.চিদাম্বরম বলেন, “ভারতের স্থিতি হল এই যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানব অধিকার পরিষদের কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত যাতে, শ্রীলঙ্কাকে বুঝতে দেওয়া যায় যে, স্বাধীন ও বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত তার চালানো উচিত্”. শ্রীলঙ্কা অস্বীকার করছে যে, তার বাহিনী দেশের উত্তরে ও পুবে তামিল বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সাথে বহু বছরের সঙ্ঘর্ষে সামরিক অপরাধ করেছে. যুদ্ধ শেষ হয় ২০০৯ সালে ব্যাপক পরিসরের সামরিক অভিযানের ফলে. আন্তর্জাতিক মানব অধিকার রক্ষা সংস্থাগুলির তথ্য অনুযায়ী, এ অভিযানের ফলে যুদ্ধের শেষ কয়েক মাসে ৪০ হাজার বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে. বহু তামিল তারপর লুকিয়ে ভারতে পালিয়েছে.