মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ছয়জন লোককে এক সুইজারল্যান্ডের পর্যটক মহিলাকে দল গত ভাবে ধর্ষণের অভিযোগে সোমবার আদালতের সামনে হাজির করা হয়েছে. ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে জানানো হয়েছে যে, এই অভিযুক্তরা নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে. ট্র্যাজেডি ঘটেছে শুক্রবার রাতের অন্ধকারে, যখন এই ট্যুরিস্টরা রাত কাটানোর জন্য দাতিয়া নামের এক এলাকায় রাস্তার ধারে তাঁবু খাটিয়েছিল. দশ জন সশস্ত্র লোক এদের উপরে হামলা করে জিনিষ পত্র ও টাকা পয়সা সব কেড়ে নেয়, তারপরে মহিলাকে ধর্ষণ করে, আর তার স্বামীকে মারধর করে বেঁধে রেখেছিল. বর্তমানে এই দম্পতি রয়েছেন দিল্লী শহরে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতাবাসে, তাঁদের অবস্থা দুর্ভাগ্য জনক. তাঁরা ঠিক করেছেন, ভারতে থেকে তদন্তে সাহায্য করবেন.

একই সময়ে মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার সদস্যরা সোমবারে অনেক গুলি শান্তিপূর্ণ মিছিলের আয়োজন করেছে ও দাবী করেছে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী উমা শঙ্কর গুপ্তের পদত্যাগ, কারণ তিনি এই হিংসা রোধ করতে ব্যর্থ হয়েছেন ও ঘোষণা করেছিলেন যে, এই কাণ্ডের জন্য অনেকাংশে পর্যটকরাই দায়ী, কারণ তাঁরা আগে থেকে পুলিশকে নিজেদের গতিবিধি সম্বন্ধে অবহিত করেন নি.