ইরান ও গ্রেট-বৃটেন দ্বিপাক্ষিক কনস্যুল সম্পর্ক পুনর্স্থাপন নিয়ে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছে, ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাসান কাশগাওই-র বিবৃতির উদ্ধৃতি দিয়ে এ সম্বন্ধে জানিয়েছে ইরানের ফার্স সংবাদ এজেন্সি. ২০১১ সালের নভেম্বরে ইরানী পক্ষের বিরুদ্ধে একসারি নিষেধাজ্ঞা প্রবর্তনের পরে কয়েক হাজার মিছিলকারী তেহেরানে বৃটিশ দূতাবাস আক্রমণ করে. এ নিষেধাজ্ঞায় অনুমিত ছিল বৃটিশ আর্থিক ক্রেডিট সংস্থা এবং ইরানের ব্যাঙ্কের মাঝে সব রকমের সম্পর্ক বন্ধ করা. এ সব ঘটনার পর বৃটেন নিজের কূটনীতিজ্ঞদের দেশে ফিরিয়ে আনে এবং নিজের দূতাবাস বন্ধ করে দেয় এবং লন্ডন থেকে ইরানী কূটনীতিজ্ঞদের দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়. বর্তমানে গ্রেট-বৃটেনে ইরানের স্বার্থের প্রতিনিধিত্ব করছে ওমান আর বৃটিশ পক্ষের স্বার্থের প্রতিনিধিত্ব করছে সুইডেন.