প্রতি বছর ১ লক্ষেরও বেশি বিদেশী শিক্ষার্থী রাশিয়ায় পড়াশোনা করতে আসে. রাশিয়ার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এরকম তথ্য দিয়েছে. আরও প্রায় ৫০ হাজার ছাত্র প্রতি বছর ভর্তি হয় রাশিয়ার উচ্চ শিক্ষায়তনগুলির বিদেশী শাখাগুলিতে.

অঙ্ক, পদার্থবিদ্যা, রসায়নবিদ্যা, জীববিজ্ঞান, আই.টির ক্ষেত্রে রাশিয়ান শিক্ষার চাহিদা বিশেষ করে বেশি. বিদেশী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিশেষ করে জনপ্রিয় লোমোনসভের নামাঙ্কিত মস্কো রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, মস্কোর ফিজিক্স-টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, বাউমানের নামাঙ্কিত মস্কোর রাষ্ট্রীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মস্কোর ইঞ্জিনীয়ারিং-ফিজিক্স ইনস্টিটিউট ও সেন্ট-পিটার্সবার্গের পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট.

রাশিয়ার উচ্চ শিক্ষায়তনগুলির যে সব স্নাতক পিওর সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করেছে, তাদের অনেকেই বিশ্বের প্রথমসারির বিজ্ঞান কেন্দ্রগুলিতে চাকরি পায়. যেমন, আমেরিকার সিলিকন ভ্যালিতে ও জার্মানীর ফ্রাউনহোফের বিজ্ঞান সমিতিতে.

রাশিয়ার উচ্চ শিক্ষায়তনে ভর্তি হওয়া জটিল কিছু নয়. বহু দেশের হায়ার স্কুলগুলির তুলনায় এখানে পড়াশোনা সস্তা. রাশিয়ায় গড়ে টিউশন ফি ৩০০০ থেকে ৭০০০ ডলার বছরপ্রতি. তাছাড়াও বিদেশীদের জন্য কোটা আছে রাশিয়ার বাজেটের পয়সায় পড়াশোনা করার জন্য. রাশিয়ার সরকার ঐ কোটার পরিমাণ বাড়িয়ে ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার করতে মনস্থ করেছে. বিদেশীদের রাশিয়ার উচ্চ শিক্ষায়তনে প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে হয় না. তাদের ভর্তি করা হয় উচ্চ মাধ্যমিকের সার্টিফিকেটের ভিত্তিতে.

যারা রুশী ভাষা জানে না, তাদের প্রথমে এক বছর মেয়াদী প্রস্তুতিমুলক কোর্সে ভর্তি করা হয়. সেখানে শিক্ষার্থীরা রুশী ভাষা ও ভবিষ্যত পেশা অনুযায়ী বিষয়াবলী অধ্যয়ন করে.

যদি বিদেশী ছাত্র প্রস্তুতিমুলক কোর্সের শেষে শিক্ষালাভের জন্য অপরিহার্য জ্ঞানলাভ করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে তাকে বরখাস্ত করা হতে পারে. শুধুমাত্র মেডিক্যাল সায়েন্স পড়ার জন্য এদেশে ইংরাজী ও ফরাসী ভাষায় শিক্ষালাভ করা সম্ভব, সেক্ষেত্রে প্রস্তুতিমুলক কোর্সে ভর্তি হওয়ার দরকার নেই. তারা সরাসরি প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়.

রাশিয়ার হায়ার স্কুলগুলি থেকে ইতিমধ্যেই ১০ লক্ষেরও বেশি স্নাতক পাশ করেছে. রাশিয়া থেকে উচ্চ শিক্ষাপ্রাপ্তদের মধ্যে আছেন রাষ্ট্রপতিরা, প্রধানমন্ত্রীরা, মন্ত্রীরা, প্রখ্যাত সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মীরা, প়থিবীর বহু দেশের প্রসিদ্ধ বিজ্ঞানীরা.