২০১৩ সালে রাশিয়ার সংযুক্ত ক্রিকেট লীগ আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে। বিশ্বে এই ক্রীড়াকে নিয়ে আগ্রহীদের সংখ্যা অনেক। রাশিয়ার সাথে তুলনা করলে খুব একটা বেশি দিন হয় নি এখানে ক্রিকেট খেলা শুরু হয় আর শুরুটাও খুব দুর্দান্ত ছিল না। এমনটি জানালেন রাশিয়ার জাতীয় ক্রিকেট দলের পরিচালক পর্ষদের সদস্য তানভির খান।

তিনি বলেন, আশ্চর্য হওয়ার মত কিছুই নেই যে, রাশিয়া ক্রিকেট লীগের অধিকাংশ খেলোয়াড়রা হচ্ছেন ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার যাদের রয়েছে রাশিয়ায় থাকার গ্রীন কার্ড। সাধারণত যেমন আমি, তারাও রাশিয়ার উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ডিগ্রি পেয়ছেন, ব্যাবসা করছেন এবং সেই সাথে যারা এখানে পড়াশুনা করছেন। তানভির খান বলেন, “রাশিয়ার সংযুক্ত ক্রিকেট লীগ ৮টি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে এবং প্রতিটি দলে থাকছে ১১ জন খেলোয়াড়। এদের মধ্যে অনেক ভাল ক্রিকেটারও রয়েছেন। গতবছর রাশিয়ার সংযুক্ত ক্রিকেট লীগ লন্ডনস্থ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের(আইসিসি)স্বীকৃতি পায় এবং নিবন্ধন করা হয়। আমাদের সেই সাথে অতিরিক্ত ২০০ জন খেলোয়াড় রয়েছে। আমাদের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে মস্কোর রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বেসবল ষ্টেডিয়ামে। অনুকূল আবহাওয়ায় টানা ৪ মাসের প্রতি সপ্তাহের শনি ও রবিবার আমরা খেলে থাকি। আমাদের ম্যাচগুলোতে অনেক রুশ দর্শকদের সমাগম ঘটে এবং অনেকেই নিজেকে ক্রিকেট খেলার সাথে যুক্ত করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং ভাল ফলাফল অর্জনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।”

ইংল্যান্ডে জন্ম হওয়া ক্রিকেট খেলা দক্ষিণ এশিয়া ও আফ্রিাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে। বর্তমানে ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কায় ক্রিকেটকে জাতীয় খেলা হিসাবে বিবেচনা করা হয়। বিগত এক দশকে ওই সব দেশ থেকে রাশিয়ায় আসা যুবকরা নিজেদেরকে ক্রিকেট থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে পারে নি।

তানভির খান বলেন, আমরা রাশিয়ায় ইতিমধ্যে ক্রিকেটের ১৩তম আসর আয়োজন করতে যাচ্ছি। একই সাথে আন্তর্জাতিক ম্যাচেও অংশ নিয়ে থাকি। সব জায়গাতেই সাফল্য আসছে। ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশীপে রূপো লাভ করি। তিনি আরো বলেন, “এ বছর আমরা ৬৪টি ম্যাচ আয়োজনের পরিকল্পনা করছি। লাটভিয়া ও এস্তোনিয়া দলের মস্কো সফরের অপেক্ষা করছি আমরা। পরে ফিরতি সফরে আমরা রিগা যাবো। তাছাড়া ফ্রেন্ডশীপ ম্যাচের জন্য আমাদের কাছে বেলজিয়াম থেকে আমন্ত্রণ এসেছে। দেশের বাইরে আমাদের সফর আয়োজনের এটাই পূর্ণ তালিকা নয়।”

১লা মে রাশিয়ার জাতীয় ক্রিকেট দল চলতি মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে। ওই ম্যাচে রুশ ক্রিকেটারদের অংশ নেওয়ার সম্ভাবনা তানভির খান একেবারে বাদ দিচ্ছেন না। ক্রিকেট খেলার প্রতি রুশদের আগ্রহ দিনদিন আরো বাড়ছে।