গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে অন্ততঃ ৩৪ জন নিহত হয়েছে. দেশ হিংসাত্মক কার্যকলাপে উত্তাল, কারণ ইসলামী বিরোধীপক্ষের সমর্থকরা ‘জামাত-ই-ইসলামী’ পার্টির অন্যতম নেতা দিলওয়ার হুসেন সঈদিকে ট্রাইবুন্যাল কতৃক মৃত্যুদন্ডাদেশ দেওয়ার সিদ্ধান্তে ভীষন ক্ষুব্ধ. আদালত সঈদিকে ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সামরিক অপরাধের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছে. গতকাল নিহতদের মধ্যে ৪ জন পুলিশকর্মী, যাদের মধ্যে ২ জনকে ক্ষিপ্ত জনতা পিটিয়ে হত্যা করেছে.

এদিকে সঈদির কৌসুঁলি তাজউল ইসলাম ‘এএফপি’কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে ঘোষনা করেছেন, যে আদালতের রায় – “বিশ্রী আইনী ভুল”. আইনজ্ঞের মতে, তার মক্কেল যে সব অপরাধের জন্য তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে, সেই সব অপরাধ করেনি এবং করতে পারে না. তিনি আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে অ্যাপীল করার জন্য বদ্ধপরিকর. সঈদির বিরুদ্ধে খুন, ধর্ষণ, গণহত্যা ও ধর্মগত কারণে অত্যাচারের অভিযোগ দাখিল করা হয়েছিল.