ভারতে লক্ষ লক্ষ লোক ট্রেড-ইউনিয়নের আহ্বানে বুধবার দু দিন ব্যাপী ধর্মঘট শুরু করেছে. তারা কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি করছে মুদ্রাস্ফীতির রাশ টানার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের, বেকারীর বিরুদ্ধে সংগ্রামের এবং বেতন বৃদ্ধির. লোকে সরকারের দ্বারা শুরু করা অর্থনীতির উদারনৈতিকরণ সংক্রান্ত সংস্কারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছে, বিশেষ করে, এ সংস্কার অনুযায়ী, অর্থনীতির একসারি শাখা বিদেশী পুঁজি বিনিয়োগের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে. ডিজেল জ্বালানীর মূল্য বৃদ্ধিও বিক্ষোভ জাগাচ্ছে. ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ট্রেড-ইউনিয়নগুলি আহ্বান জানান ধর্মঘট ত্যাগ করার, এ বিষয়ে সতর্ক করে দিয়ে যে, তা দেশের অর্থনীতির জন্য বিপুল ক্ষতি নিয়ে আসবে. ধর্মঘট ইতিমধ্যে প্রায় অবশ করে দিয়েছে দেশের আর্থিক শাখাকে –ব্যাঙ্ক, বীমা ও অন্যান্য আর্থিক কোম্পানি কাজ করছে না. ভারতে ধর্মঘটে যোগ দিয়েছে প্রায় দশ লক্ষ ব্যাঙ্ক-কর্মী. হরিয়ানায় ধর্মঘটে অংশগ্রহণকারী সড়ক তৈরী কর্মীদের চাপা দিয়ে মেরেছে বাস, যার চালক অকুস্থল থেকে পালিয়েছে. ভারতের রাজধানীতে ট্যাক্সি ও অটো-রিক্সা কাজ করছে না, বাসগুলি যাত্রীর ভীড়ে ভর্তি.