রাসায়নিক অস্ত্র ভাণ্ডারের বিষয় নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করে কিছু পশ্চিমের দেশ সিরিয়াতে সামরিক অনুপ্রবেশের অজুহাত খুঁজছে বলে মনে করেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন. তিনি এই বিষয়ে রুশ টেলিভিশন চ্যানেল রাশিয়া টুডেকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেছেন. চুরকিন আশ্বাস দিয়েছেন যে, এই প্রশ্ন একাধিকবার সিরিয়ার প্রশাসনের নেতৃত্বের সামনে উত্থাপন করা হয়েছে, আর তারা ভরসা দিয়েছেন যে, “এমনকি যদি সিরিয়াতে এই ধরনের অস্ত্র থেকেও থাকে, তবুও তা কোন ভাবেই কেউই ব্যবহার করবে না”. তাঁর কথামতো, রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তর মনে করে যে, সিরিয়ার প্রশাসনের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্রের উপস্থিতির প্রসঙ্গ তুলে অনেক হুমকি দেওয়া হয়েছে. “এই ধরনের কথার ধরণ বিরোধী পক্ষকে কিছু বিপজ্জনক কাজ করতে উস্কানি দিতে পারে: কিছু জঙ্গী বাহিনীর লোক একটা প্ররোচনাও দিতে পারে.যেমন, রাসায়নিক অস্ত্রের ভাণ্ডার দখল করে তা ব্যবহার করে সিরিয়াতে অন্তর্ঘাত করতে পারে, আর তা দিয়েই বাইরের দেশ থেকে সিরিয়াতে সামরিক অনুপ্রবেশের প্ররোচনা দিতে পারে”.