সর্বচীনা পার্লামেন্টের অধ্যক্ষ উ বাংগো বলেছেন, যে আগামী কয়েক বছর চীনের নীতির মূল অভিমুখ হবে নিজস্ব অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় নিরাপত্তা বজায় রাখা.

অর্থনীতিতে ভারসাম্যের অভাব ও অন্যান্য জটিলতা থাকা সত্বেও চীন বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে নিজস্ব অর্থনৈতিক উন্নয়নের হার বাড়িয়ে যাবে – বলেছেন উ বাংগো ভ্লাদিভস্তোকে সদ্য শুরু হওয়া এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলির ২১-তম অধিবেশনে.

উ বাংগোর কথায়, চীন সর্বতোভাবে চেষ্টা করবে জ্বালানীশক্তি বাঁচানোর ও বিশুদ্ধ প্রাকৃতিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অর্থনীতির ‘সবুজ’ উন্নয়ন সুনিশ্চিত করার. তিনি উল্লেখ করেছেন, যে ২০২০ সাল নাগাদ চীন তার নাগরিকদের ‘বেশ ভালো’ আয়ের সুবন্দোবস্ত করার সংকল্প নিয়েছে. তিনি যোগ করেছেন, যে পরিবেশ রক্ষার ক্ষেত্রে চীন অন্যান্য দেশের সাথে সহযোগিতা করবে ও বিদেশী পুঁজি আকর্ষন করবে.

এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সহযোগিতার প্রসঙ্গে উ বাংগো বলেছেন, যে তার দেশ এই অঞ্চলের উন্নয়নশীল দেশগুলিকে সাহায্য করতে মনস্থ করেছে. চীন স্বাধীন বৈদেশিক নীতি অনুসরন করে যাবে ও সমস্ত বিতর্কিত এলাকা নিয়ে সমস্যার মিটমাট করতে চায় অন্যান্য দেশের সাথে. চীন কোনো দেশের জন্যই আশংকার কারন হবে না এবং এই অঞ্চলে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাক – সেটা চায় না.