পাকিস্তানের শাসক কর্তৃপক্ষ এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, যে দেশে ভোটের আয়োজন করা হবে নির্ধারিত সময়ে ও সংবিধান মেনে. ভোটদান পর্ব শেষ না হওয়া পর্যন্ত সব রাজনৈতিক শক্তির পক্ষে গ্রহণযোগ্য অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গড়া হবে. এরকম বোঝাপড়া হয়েছে ইসলামাবাদে সরকারের সাথে আন্দোলনকারী ‘তেহরিক-এ-মিনাজ উল-কোরান’ গোষ্ঠীর নেতা তাহির কাদ্রির আলাপ-আলোচনার পরে. ফলশ্রুতিতে চার দিন ধরে পাকিস্তানের রাজধানীতে চলতে থাকা আন্দোলনে ইতি টানার কথা ঘোষনা করা হয়েছে.

তাহির কাদ্রি তার অনুগামীদের সামনে ভাষণ দিয়ে বলেছেন – “আমাদের সব দাবীদাওয়া নিয়ে রফা হয়েছে”. বর্তমান সরকার ১৬ই মার্চের আগে সব এ্যাসেম্বলি ও কেন্দ্রীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে তারপরে ৯০ দিনের মধ্যে নতুন সংসদের নির্বাচনের আয়োজন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে. দেশের প্রধানমন্ত্রী রাজা পারভেজ আসরাফ ও রাষ্ট্রপতি আসিফ জারদারি ঐ চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন.

ইসলামাবাদে আন্দোলনরত জনতা সোল্লাসে এই সমঝোতাকে স্বাগত জানিয়েছে. তারা একে অপরকে অভিনন্দন জানাচ্ছে ও নাচগান করছে. শাসকদের সাথে সমঝোতা হওয়ার পরে তাহির কাদ্রি ঘোষনা করেছেন, যে লক্ষ লক্ষ মানুষের মার্চ বৃহস্পতিবার রাতে শেষ করা হবে.