“আমাদের রাশিয়া সফর অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে” – ১৪-১৬ই জানুয়ারী তিনদিনব্যাপী মস্কো সফরের এরকম উচ্চ মূল্যায়ণ করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘রেডিও রাশিয়া’কে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাত্কারে. তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ থেকে একটা বড় প্রতিনিধিদল মস্কোয় এসেছে, যাদের মধ্যে আছেন গুরুত্বপূর্ণ সব মন্ত্রণালয়ের কর্তাব্যক্তিরা. প্রধানমন্ত্রী বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন, যে সফরকালে বহু বিষয় নিয়ে আলাপ-আলোচনা হয়েছে, যার তাত্পর্য বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য অগাধ.—

বাংলাদেশের মাটিতে প্রথম পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র গড়ার খাতে রাশিয়া ৫০ কোটি ডলার ঋণ দেবে বাংলাদেশকে. শেখ হাসিনা বলছেন, যে এর সুবাদে পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র গড়ার প্রাথমিক সব খরচাপাতি মেটানো সম্ভব হবে. সবমিলিয়ে দুটি রি-এ্যাকটরের উত্পাদন শক্তি হবে ২০ হাজার মেগাওয়াট.

শেখ হাসিনা সানন্দে বলছেন – এটাই একমাত্র ঋণ নয়. বাংলাদেশের প্রতিরক্ষার খাতেও রাশিয়া তার দেশকে ১০০ কোটি ডলার ঋণ দেবে.---

রাশিয়ার সামরিক-প্রযুক্তি বিভাগের সূত্রে খবর পাওয়া গেছে, যে বাংলাদেশ ধারে রাশিয়ার কাছ থেকে কিনবে বিটিআর-৮০ ও টি-৭২ মার্কা ট্যাঙ্ক ও সু-৩০এমকে-২ মার্কা সামরিক বিমান.

রাশিয়া বাংলাদেশকে সাহায্য করবে টেলিকম্যুনিকেশন স্যাটেলাইট মহাকাশে পাঠাতে. রাশিয়ার ‘গ্যাসপ্রোম’ ও বাংলাদেশের ‘পেট্রোবাংলা’ বিনিয়োগ করবে যৌথভাবে ১০টি প্রাকৃতিক গ্যাসের নলকূপ খননের কাজে, যার ফলে বাংলাদেশে প্রাকৃতিক গ্যাসের উত্পাদন ব্যাপকমাত্রায় বৃদ্ধি পাবে.