বাংলাদেশের প্রধান সামুদ্রিক বন্দর চট্রগ্রাম রাশিয়ার ভ্লাদিভস্তকের সাথে মৈত্রী নগরী রুপে গড়ে ওঠার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি ভ্লাদিভস্তকের নগর প্রশাসনের কাছে পাঠানো হয়েছে এবং এর উত্তরের অপেক্ষা করছে চট্রগ্রাম নগর। বার্তাসংস্থা রিয়া নোভাসতিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে এ কথা জানিয়েছেন চট্রগ্রামের মেয়র এম মনজুর আলম। তিনি চট্রগ্রামকে বাংলাদেশের সামুদ্রিক ফটক ও ভ্লাদিভস্তককে রাশিয়ার সামুদ্রিক ফটক বলে উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের গ্রীষ্মকালে প্রথমবারের মত ভ্লাদিভস্তক সফর করেন চট্টগ্রাম চেম্বার অব কর্মস এন্ড ইন্ডাস্ট্রির(সিসিসি এন্ড আই) একটি প্রতিনিধি দল এবং ওই সময় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে সরাসরি ব্যাবসায়িক সম্পর্ক স্থাপনের বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।