মালি রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির দায়ভার প্রাপ্ত দিওনকুণ্ডে ট্রায়োরে সারা দেশ জুড়ে দেশের উত্তর দখল করে রাখা ঐস্লামিক জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি ঘোষণা করেছেন. বিদ্রোহীরা দক্ষিণের দিকে এগিয়ে আসছে এই রকমের এক খবরের পরিস্থিতিতে ট্রায়োরে নিজের দেশবাসীর প্রতি আহ্বানে ঘোষণা করেছেন যে, তাঁর অন্য কোনও পথ নেই সকলে মিলে যুদ্ধ প্রস্তুতি নেওয়া ছাড়া, যাতে এদের বাধা দেওয়া সম্ভব হয়. তিনি যোগ করেছেন যে, নিজের লক্ষ্য সাধনের জন্য প্রস্তুত রয়েছেন, যদি তার জন্য সমস্ত কিছু দিয়েও লড়তে হয়. এছাড়া দেশে সরকারি ভাবে ঘোষণা করা হয়েছে জরুরী অবস্থা. মালিতে পরিস্থিতি স্থিতিশীলতা হারাতে চলেছে দেখে ১০ই জানুয়ারী ফ্রান্সের উদ্যোগে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরী বৈঠক ডাকা হয়েছিল. এই বছরের ডিসেম্বর মাসে নিরাপত্তা পরিষদ মালিতে ৩৩০০ আফ্রিকার দেশ সমূহের সেনাকে কম করে হলেও এক বছরের জন্য দেশের উত্তরে এলাকাতে নিয়োগের জন্য ছাড়পত্র দিয়েছিল, যেখানে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা নিজেদের আঝাবাদ নামের রাষ্ট্র ঘোষণা করেছে. ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রান্সুয়া ওল্লান্দ ১১ই জানুয়ারী মালিতে ফরাসী সামরিক বাহিনীর যুদ্ধে যোগ দেওয়াকে সমর্থন করে স্বীকার করেছেন.