সিরিয়ায় বিরোধীপক্ষের মিত্রদেশগুলি প্ররোচনা চালানোর চেষ্টা করছে স্লাভ চেহারার লোকেদের ব্যবহার করে, যাতে আলাপ-আলোচনার প্রক্রিয়ায় এক প্রধান মধ্যস্থ রাশিয়ার মানহানি করা যায়. এ সম্বন্ধে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সি জানিয়েছে মস্কোয় এক সামরিক-কূটনৈতিক উত্সকে উদ্ধৃত করে. বর্তমানে সিরিয়ায় বিদ্যমান শাসন বিন্যাসকে উত্খাত করায় আগ্রহী প্রতিনিধিরা স্লাভ চেহারার লোকেদের – রাশিয়া, ইউক্রেন ও বেলোরুশিয়ার নাগরিকদের দলে টানছে. তাদের পালন করতে হবে রাশিয়ার ভাড়াটে সৈনিকদের ভূমিকা, যারা নাকি আসদের পক্ষে লড়াই করছে, সঠিক করে বলেন এজেন্সির সংলাপীরা. সেই উত্স মনে করিয়ে দেন যে, আগে রাশিয়াকে দোষ দেওয়া হয়েছিল রাষ্ট্রসঙ্ঘে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদ-কে সমর্থনের জন্য. তারপর পশ্চিমী প্রচার মাধ্যম সিরিয়ায় রাশিয়ার অস্ত্র, সেই সঙ্গে এমনকি “ইস্কান্দের” রকেট সমাহার সরবরাহের বিষয় নিয়ে বহু সোরগোল তুলেছিল. এ সব প্ররোচনার অন্তিম লক্ষ্য হল সঙ্ঘর্ষে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার জন্য রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা এবং সিরিয়ার প্রশ্ন বিবেচনার আলাপ-আলোচনার প্রক্রিয়ায় তাকে মধ্যস্থের ভূমিকা থেকে বঞ্চিত করা, মনে করেন এজেন্সির সংলাপী.