২০১৩ সাল - সোচিতে শীত-অলিম্পিকের অকথিত সূচনা. গত বরের নভেম্বরে মস্কোয় এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে অলিম্পিকের দীপবর্তিকা রাশিয়ার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে. রিলে রেস শুরু হবে ৭ই অক্টোবর. ঐতিহ্য মতোই, গ্রীসে জ্বালানো হবে অলিম্পিক অগ্নিশিখা ও তারপরে রাশিয়ায় পাঠানো হবে. পরের দিন থেকেই শুরু হবে রাশিয়ায় ৬৫ হাজার কিলোমিটার ব্যাপী তার পথ পরিক্রমা.

শীত-অলিম্পিকের ইতিহাসে এটা হবে মশাল নিয়ে দীর্ঘতম রিলে রেস. মশাল বয়ে নিয়ে যাওয়া হবে মোটরগাড়িতে, ট্রেনে, বিমানে, রুশী তিন ঘোড়ায় টানা গাড়িতে, ও বল্গাহরিণে করে. মশাল দৌড় যাবে দেশের ২৯০০টি জনবসতি কেন্দ্র দিয়ে, যার মধ্যে থাকবে রাশিয়ার সুদূরবর্তী বসতিকেন্দ্রগুলি পর্যন্ত. এই প্রসঙ্গে বলছেন ২০১৪ সালের শীত-অলিম্পিকের সংগঠক কমিটির প্রধান দমিত্রি চেরনীশেনকো. ---

মশাল বয়ে নিয়ে যাওয়া হবে পৃথিবীর গভীরতম হ্রদ বৈকালের একেবারে তলা থেকে ইউরোপের উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ পর্যন্ত, যাবে উত্তর মেরুতেও, এমনকি বোধহয় মহাকাশেও.

তাহলে রাশিয়া হবে বিশ্বে প্রথম দেশ, যে মহাকাশে পাঠাবে অলিম্পিক মশাল. রসকসমস জানিয়েছে, যে এটা সম্ভবপর. মশালটিকে বিশেষ এক ক্যাপসুলে পুরে মহাকাশ ষ্টেশনে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে. আরো বিখ্যাত যেসব জায়গা দিয়ে মশাল বয়ে নিয়ে যাওয়া হবে, তার মধ্যে আছে কাউন্ট লেভ তলস্তোয়ের বসতএস্টেট, কামচাতকায় জাগরুক আগ্নেয়গিরি, ইউনেস্কোর তালিকাভুক্ত কিঝি স্থাপত্য মিউজিয়ামও. যেহেতু অলিম্পিক হবে ককেশাসে, তাই আদীগেই প্রজাতন্ত্রের বিস্তীর্ণ এলাকা দিয়ে মশাল বহন করে নিয়ে যাওয়া হবে. মোট ১৪ হাজার মশালবাহক রিলে রেসে অংশ নেবে. এমনকি হলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা স্টিভেন সিগালও অলিম্পিক মশালের রিলে দৌড়ে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন. সিনক্রোনাইজড সাঁতারে অলিম্পিকে ৩টে স্বর্ণপদক জয়ী ও লন্ডন অলিম্পিকে মশালদৌড়ে যোগদানকারী মারিয়া কিসিলিয়োভার মতে ক্রীড়াবিদের জন্য এটা সবচেয়ে বড় সম্মান. ---

আমার বরাবরই মনে হয়েছে, যে এটা মানুষকে ঐক্যবদ্ধকারী মুহুর্ত, যা দিয়ে অলিম্পিকের সূচনা হয়. উদ্বোধনের আগে মশাল এক হাত থেকে অন্য হাতে তুলে দেয় প্রখ্যাত ব্যক্তিরা, ক্রীড়াবিদরা ও সাধারন ক্রীড়াপ্রেমীরা. আমার বরাবরের আকাঙ্খা ছিল এই শুভমুহুর্তে উপস্থিত থাকার ও পবিত্র দীপবর্তিকাকে স্পর্শ করার শিহরণ অনুভব করার.

অলিম্পিক মশাল নিয়ে রিলে দৌড় শেষ হবে ২০১৪ সালের ৭ই ফেব্রুয়ারী সোচিতে. সেখানে মুখ্য অলিম্পিক স্টেডিয়াম নির্মাণের কাজ জোরকদমে চলছে. স্টেডিয়ামটিকে এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে, যে সেখানে যেকোনো বল্গাছাড়া কল্পনাপ্রতিভা রূপায়িত করা সম্ভব হবে. স্থপতিরা জোর দিয়ে বলছে, যে সোচির স্টেডিয়াম লন্ডন বা বেইজিংয়ের মুল অলিম্পিক স্টেডিয়ামগুলির থেকে কোনো অংশে পিছিয়ে থাকবে না.

সোচিতে অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটিও বর্ণোজ্জল হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হচ্ছে. অনুষ্ঠানটি তৈরি করা নিয়ে কাজ করছে রাশিয়ার ১ নম্বর টিভি-চ্যানেলের প্রধান কনস্তানতিন এর্নস্তের নেতৃত্বাধীন একটি আন্তর্জাতিক দল.

স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, যে শীতকালীন অলিম্পিক সোচিতে অনুষ্ঠিত হবে ২০১৪ সালের ৭ই-২৩শে ফেব্রুয়ারী. তারপরে সেইসব প্রতিযোগিতা কেন্দ্রেই আয়োজিত হবে শীতকালীন প্যারাঅলিম্পিক গেমস.