ইরানের বিরুদ্ধে বলপ্রয়োগ বিশ্ব নিরাপত্তার জন্য অতি গুরুতর নেতিবাচক পরিণতি নিয়ে আসতে পারে, “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সিকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে এ সম্বন্ধে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ. তাঁর কথায়, ইরানের বিরুদ্ধে বলপ্রয়োগের বিপদ পারস্পরিক গ্রহণযোগ্য সমঝোতা অ৪জনে বাধা দিচ্ছে. লাভরোভ আন্তর্জাতিক জনসমাজকে অতি সাবধানে ক্রিয়াকলাপ চালানোর আহ্বান জানিয়েছেন. তিনি আরও যোগ করে বলেন যে, আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশ” (রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য পাঁচটি দেশ এবং জার্মানি) ও ইরানের আলাপ-আলোচনার পরিপ্রেক্ষিত আছে. তাঁর কথায়, বিগত এক বছরে কয়েকটি সংস্পর্শের বিন্দু খুঁজে পাওয়া গেছে এবং পরস্পরের স্থিতির কিছুটা নৈকট্য বৃদ্ধিও হয়েছে. লাভরোভ সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এ ব্যাপারে যে, ১৩ই ডিসেম্বর তেহেরানে ইরানীদের সাথে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির প্রতিনিধিদের সাক্ষাতে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির মীমাংসায় নির্দিষ্ট অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে. ২০১৩ সালের জানুয়ারীর মাঝামাঝি আরও একটি সাক্ষাত্ হবে. রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ আশা প্রকাশ করেন যে, ঐ সাক্ষাতে পূর্ণ সমঝোতা অর্জিত হবে. লাভরোভ জোর দিয়ে বলেন যে, বেসামরিক পারমাণবিক কর্মসূচি বাস্তবায়নে ইরানের অবশ্যই অধিকার আছে, সেই সঙ্গে, ইউরেনিয়াম পরিশোধনেও. তবে, পারমাণবিক শক্তির ক্ষেত্রে ইরানের কাজকর্ম আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির নির্ভরযোগ্য ও সর্বাত্মক নিয়ন্ত্রণে থাকা উচিত, জোর দিয়ে বলেন তিনি. লাভরোভ যোগ করে বলেন, “ইরানের তরফ থেকে গঠনমূলক পদক্ষেপের উত্তরে আন্তর্জাতিক জনসমাজেরও যথাযথ পারস্পরিকতা দেখানো উচিত, সেই সঙ্গে পর্যায়ে পর্যায়ে বাধা-নিষেধ স্থগিত রাখা এবং বাতিল করা উচিত্ – যেমন একপাক্ষিক, তেমনই রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের দ্বার প্রবর্তিত বাধা-নিষেধ”.