রাশিয়ার কোম্পানী রুশ হেলিকপ্টার ও ভারতের এলকম সিস্টেম্স প্রাইভেট লিমিটেড যৌথভাবে ভারতে “মি” ও “কা” ধরনের হেলিকপ্টার জোড়া দিয়ে বানানোর কারখানা খুলতে চলেছে.

এই ধরনের একটি চুক্তি কয়েকদিন আগে ভারতে রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সফরের সময়ে স্বাক্ষরিত হয়েছে. বিষয় নিয়ে বিশদ করে লিখেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.

এই যৌথ প্রকল্প হেলিকপ্টারের প্রধান যন্ত্রাংশ গুলি উত্পাদনে সক্ষম হবে ও পরবর্তী কালে এই গুলির সম্পূর্ণ রকমের সংযোগ করে হেলিকপ্টার উত্পাদন করতে পারবে, সেখানে যেমন মাটিতে, তেমনই উড়ান পরীক্ষা করার সম্ভাবনাও তৈরী হবে. আশা করা হয়েছে যে, এই প্রকল্প কাজ করতে শুরু করবে রাশিয়াতে তৈরী হাল্কা ও বহু কার্যে সক্ষম হেলিকপ্টার “কা- ২২৬টি” ধরনের জন্য যন্ত্রাংশ উত্পাদন দিয়ে. আসন্ন ভবিষ্যতে তা রাশিয়াতে তৈরী উচ্চ প্রযুক্তি সহ হেলিকপ্টার গুলিকে ভারতেই তৈরী করে বিক্রীর জন্য বাজারে আনতে চলেছে.

এই যৌথ প্রকল্প রুশ- ভারত সহযোগিতার বিষয়ে প্রধান প্রবণতা অনুযায়ী করা হচ্ছে: “বাণিজ্য থেকে - যৌথ উত্পাদনের দিকে”. ভারতে রুশ- ভারত যৌথ প্রকল্প “ব্রামোস” তৈরী হয়েছে, তা ভারতের নদী ব্রহ্মপুত্র ও রাশিয়ার মস্কো নদীর নাম মিলিয়ে নাম দেওয়া হয়েছে. এই কোম্পানী বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত ও দিক পরিবর্তনে সক্ষম ব্যালিস্টিক মিসাইল উত্পাদন করে থাকে.

নতুন যৌথ হেলিকপ্টার নির্মাণ প্রকল্প ভারতের বিমান নির্মাণ শিল্প ক্ষেত্রে অগ্রগতির বিষয়ে সহায়তা করবে, এই রকম মনে করেন রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের সভাপতি আলেকজান্ডার কনোভালভ. তাঁর কথামতো, হেলিকপ্টার নির্মাণে রুশ- ভারত যে যৌথ প্রকল্প তৈরী হতে চলেছে, তারই সঙ্গে ভারতে উচ্চ প্রশিক্ষিত নির্মাতা ও ইঞ্জিনিয়ার তৈরী হবেন সমস্ত রকমের উত্পাদন জড়িত বিষয়েই. তিনি যোগ করেছেন:

“ভারতে হেলিকপ্টার জোড়া লাগানোর কারখানা ছাড়াও আমরা ঠিক করেছি এশিয়ার দেশ গুলিতে অনেক পরিষেবা কেন্দ্র খোলার, অংশতঃ ভিয়েতনামে. এটা আমাদেরই বাজারের প্রসারের সাক্ষী দেয় ও বলে যে, রাশিয়ার সামরিক যন্ত্র বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই জনপ্রিয়তা পাচ্ছে”.

বর্তমানের পরিষেবার নেটওয়ার্ক রাশিয়ার “রুশ হেলিকপ্টার” কোম্পানীর বিক্রীর ভূগোলের সঙ্গেই জড়িত. অংশতঃ, সংযুক্ত আরব আমীরশাহী রাষ্ট্রের শারজা শহরে খোলা হয়েছে এক যৌথ প্রকল্প, ইন্টারন্যাশনাল রোটরক্রাফ্ট সার্ভিসেস নামে, যেখানে বিক্রীর পরে রুশ হেলিকপ্টারের পরিষেবা দেওয়া হয়ে থাকে. স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহের প্রায় সমস্ত দেশেই এই হোল্ডিং কোম্পানীর পরিষেবা দেওয়ার কেন্দ্র রয়েছে. প্রতিনিধি দপ্তর ও পরিষেবা কেন্দ্র খোলা হয়েছে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া, মধ্য ও দক্ষিণ আফ্রিকায় এবং এমনকি লাতিন আমেরিকাতেও. অংশতঃ, ভেনেজুয়েলা দেশে তৈরী করা হচ্ছে রুশ হেলিকপ্টার পরিষেবার জন্য বৃহত্তম পরিষেবা কেন্দ্র তৈরী হচ্ছে. এই ধরনের সব গুণমান, যেমন ব্যবহারে সহজ, ভরসাযোগ্য, খুব দামী নয়, পরিষেবার ক্ষেত্রে বেশী চাহিদার অভাব ও মাল তোলার ব্যাপারে বিরল ক্ষমতা আর উড়ানের উচ্চতা রাশিয়াতে তৈরী হেলিকপ্টার গুলিকে বিশ্বের বাজারে জায়গা করে নিতে সাহায্য করছে এক সেরা যন্ত্র হিসাবে.