প্রায় এক লক্ষ লোক দামাস্কাসের উপকণ্ঠে অবস্থিত প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের “ইয়ারমুক” শিবির ত্যাগ করে গেছে সিরিয়ার সরকারের পক্ষসমর্থক ও বিরোধীপক্ষের মাঝে সঙ্ঘর্ষের দরুণ. সঙ্ঘর্ষের ফলে বহু সংখ্যক শরণার্থী নিহত হয়েছে, “ভয়েস অফ প্যালেস্টাইন” বেতারকেন্দ্রকে বলেছেন সিরিয়ায় "ফাথ" আন্দোলনের প্রতিনিধি সামির আর-রিফাই. তাঁর কথায়, সিরিয়ায় প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের বৃহত্তম শিবির নিয়ন্ত্রণ করছে সিরিয়ার স্বাধীন বাহিনীর দল, সেখান থেকে “প্যালেস্টাইনী মুক্তির গণ ফ্রন্ট – মুখ্য অধিনায়কমন্ডলী” দলের সক্রিয় কর্মীদের সরিয়ে দিয়ে. ৯০ শতাংশেরও বেশি বাসিন্দা নিজেদের ঘর-বাড়ি ছেড়ে চলে গেছে সিরিয়াতেই নিরাপদ জায়গায়, আর তাছাড়া লেবাননে, যেখানে কর্তৃপক্ষ তাদের আগমনে বাধা দিচ্ছে না, বলেন আর-রিফাই. তিনি যোগ করে বলেন যে, এখন শিবিরের বেসামরিকীকরণ সম্বন্ধে আলাপ-আলোচনা চালানো হচ্ছে, যাতে শরণার্থীরা সেখানে ফিরে আসতে পারে. সিরিয়ায় প্রায় পাঁচ লক্ষ প্যালেস্টাইনী শরণার্থী আছে, তার মধ্যে এক লক্ষেরও বেশি বাস করত “ইয়ারমুক” শিবিরে, যা রাজধানী থেকে মাত্র পাঁচ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত.