সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ উদ্বিগ্ন যে, কিছু দেশ বিদ্রোহীদের রাসায়নিক অস্ত্রের যোগান দিয়ে থাকতে পারে, আর তারপর সরকারী বাহিনীর দ্বারা তা ব্যবহারের দোষ দিতে পারে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘে সিরিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি বাশার জাফারি-র চিঠিতে, যা পাঠানো হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন এবং নিরাপত্তা পরিষদের কাছে. চিঠিতে কূটনীতিজ্ঞ আরও বলেছেন যে, রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের সম্ভাবনা সম্বন্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলির উদ্বেগ সিরিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপের জন্য অজুহাত হতে পারে. সেই সঙ্গে জাফারি জোর দিয়েছেন যে, দেশের কর্তৃপক্ষ কোনো ক্ষেত্রেই রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করবে না. তিনি সতর্ক করে দেন যে, সরকারবিরোধী দলগুলির সন্ত্রাসবাদীরা সিরিয়ার জনগণের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করতে পারে. গত সোমবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ মুয়াল্লেমের সাথে আলাপ করেন. এ আলাপের সময় বান কি মুন দামাস্কাসের দক্ষিণে প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের ইয়ারমুক শিবিরে বিমান আঘাত উপলক্ষে উদ্বেগ প্রকাশ করেন, যার ফলে ২৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে. মুয়াল্লেম নিজের তরফ থেকে জানিয়েছেন যে, “প্যালেস্টাইনীদের সন্ত্রাসবাদী দলগুলিকে সাহায্য করা অথবা তাদের আশ্রয় দেওয়া” উচিত্ নয়.