জাপানের লিবেরাল-ডেমোক্রেটিক পার্টির নেতা এবং দেশের ভবিষ্যত্ প্রধানমন্ত্রী সিন্দজো আবে রাশিয়ার সাথে ভূভাগীয় প্রশ্ন মীমাংসা করতে এবং শান্তি চুক্তি সম্পাদন করার অভিপ্রায়ের কথা ঘোষণা করেছেন. পার্লামেন্টারী নির্বাচনে পার্টির জয়লাভের পরে আবে উল্লেখ করেন যে, আগে প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকা কালে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে তাঁর সাক্ষাত্ হয়েছে. তিনি বলেন, “এখন পুনর্নির্বাচিত হওয়ার পরে, এবং প্রধানমন্ত্রীর পদ গ্রহণের পরে আমরা দু দেশের মাঝে সম্পর্কের উন্নতি করব”. জানানো হয়েছে যে, লিবেরাল-ডেমোক্রেটিক পার্টি “কোমেইতো” পার্টির সাথে মিলে গত রবিবার অনুষ্ঠিত পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষের নির্বাচনে প্রশ্নাতীত সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে. জাপান দাবি করছেকুরিল দ্বীপপুঞ্জের চারটি দ্বীপের – ইতুরুপ, কুনাশির, শিকোতান ও হাবোমাই, ১৮৫৫ সালের বাণিজ্য ও সীমানা সংক্রান্ত দ্বিপাক্ষিক দলিলের উদ্ধৃতি দিয়ে. মস্কোর স্থিতি হল এই যে, দক্ষিণ কুরিল দ্বীপপুঞ্জ সোভিয়েত ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ফলাফলের ভিত্তিতে. সেইজন্য এ দ্বীপপুঞ্জের উপর রাশিয়ার সার্বভৌমত্ব, যা আন্তর্জাতিক বিধান অনুযায়ী সূত্রবদ্ধ, সন্দেহের অবকাশ রাখে না, মনে করা হচ্ছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়.