কায়রোর রাস্তাঘাটে বিশৃঙ্খলা দেখানোর সময় গুরুতর আহত হয়ে মিশরের এক সাংবাদিক বুধবার শহরের এক হাসপাতালে মারা গেছে. মিশরের ‘মেনা’ সংবাদমাধ্যম. স্বাধীন সংবাদপত্র আল-ফাহর(ভোর)এর সংবাদদাতা ৩৩-বছর বয়সী আল-হুসেইনি আবু মাথায় আঘাত পান একটি শিকারী বন্দুকের গুলিতে এক সপ্তাহ আগে, যখন রাষ্ট্রপতি ভবনের আশেপাশে গন্ডগোল চলছিল. চিকিত্সকেরা সাংবাদিকটির প্রাণ রক্ষা করতে পারেননি – সে কোমা থেকে আর বেরোতে পারেনি. সে হল মোহাম্মদ মোর্সির অনুগামী ও প্রতিপক্ষের মধ্যে লড়াইয়ে দশমতম শিকার. বিরোধীরা নিরস্ত্র প্রতিবাদকারীদের উপর অস্ত্রপ্রয়োগ করার অভিযোগে দুষছে ইসলামীদের.

বুধবার সন্ধ্যায় কায়রোয় সাংবাদিকদের ট্রেড-ইউনিয়ন ভবনের সামনে দেশের বহু গণ্যমান্য সাংবাদিক সহ তার অসংখ্য স্থানীয় সহকর্মীরা নিহতের স্মৃতির প্রতি সম্মান জ্ঞাপন করে. তারা ঐস্লামিক শাসকদের যথেচ্ছাচারের তীব্র সমালোচনা করে মোর্সির পদত্যাগের দাবী করেছে