ইরান তার পারমানবিক প্রকল্পের প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি এজেন্সির সাথে আলাপ-আলোচনায় প্রস্তুত, কিন্তু যে কোনো প্রশ্নে শান্তিপূর্ণ উদ্দেশ্যে পরমানুর সমৃদ্ধিকরনের জন্য তেহেরানের অধিকার মেনে নিতে হবে. ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রকের তথ্যসচিব রামিন মেহমানপরাস্ত এই মন্তব্য করেছেন. তিনি আরও যোগ করেছেন, যে ১৩ই ডিসেম্বর তেহেরানে উভয়পক্ষের বিশেষজ্ঞরা আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি এজেন্সির সাথে সম্ভাব্য ঐক্যমতে পৌঁছানোর পথ নিয়ে কথাবার্তা বলবেন.

গতসপ্তাহে শক্তি এজেন্সির প্রধান ইউকিও আমানো স্বীকার করেন, যে বিগত ১ বছরে তার এজেন্সির পরিদর্শকরা ইরান পারমানবিক অস্ত্র নির্মানের লক্ষ্যে গবেষণা চালিয়েছে কিনা, তার কোনো সাক্ষ্য পায়নি. গত বছরের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি এজেন্সি থেকে বলা হয়েছিল, যে গুপ্তচরদের তথ্য অনুযায়ী, ইরান এমন গবেষণায় লিপ্ত ছিল, যা পারমানবিক অস্ত্র নির্মানে সাহায্য করতে পারে. ইরান অন্যদিকে সব দোষারোপ অস্বীকার করে ঘোষনা করছে, যে তাদের পারমানবিক প্রকল্প পুরোপুরি দেশে বিদ্যুতের ঘাটতি মেটানোর জন্য কাজ করছে.