চলতি বছরের মাঝামাঝি সিরিয়ার উত্তরে একসারি এলাকায় নিয়ন্ত্রণ কায়েম করা কুর্দীরা স্বাধীন সৈন্যবাহিনী গঠনের কাজে হাত দিয়েছে. জাতীয় কুর্দীস্তান পরিষদের শীর্ষ পদাধিকারী শিরকো আব্বাসের উদ্ধৃতি দিযে ‘এলাফ’ ইন্টারনেট-পোর্টাল এই তথ্য যুগিয়েছে. আব্বাস ঘোষনা করেছেন, যে গঠনরত সেনাবাহিনীর মুখ্য কর্তব্য হবে সিরিয়ায় কুর্দীস্তানের ভুখন্ডে যেকোনো সশস্ত্র হামলা প্রতিহত করা. পশ্চিমী দুনিয়ার মতে, এই সেনাবাহিনী সিরিয়ায় চরমপন্থী মুসলিমদের প্রসারে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে. শিরকো আব্বাস বলেছেন, যে স্বাধীন কুর্দী সেনাবাহিনীতে যেমন কুর্দীদের, তেমনই মুসলমান ও খ্রীশ্চানদের নিয়োগ করা হবে.

সিরিয়ায় প্রায় ২ কোটি ৩০ লক্ষ কুর্দীর বসবাস, যা দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় ১০%. গত মার্চ থেকে চলতে থাকা সিরিয়ায় সংঘাতে কুর্দীরা অংশ নেয়নি বললেই চলে. হাসেকে ও কামীশলা নামক ২টি বড় শহর ছাড়া সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সেনাবাহিনী দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বাকি এলাকা ছেড়ে চলে গেছে. ঐ সমস্ত এলাকা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে এনেছে কুর্দীরা.