রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ সেই সম্ভাবনাকে বাদ দেন নি যে, তিনি রাষ্ট্রপতি পদের জন্য আবার নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন ও রাশিয়ার বাজেটে যে, উল্লিখিত সামাজিক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন বাবদ ব্যয়ের জন্য অর্থ রয়েছে, সেই কথা সত্য. অংশতঃ, বাজেট ক্ষেত্রে বেতনের পরিমান বাড়ানো হবে, বিশেষত চিকিত্সক ও শিক্ষকদের জন্য.

রাশিয়ার মন্ত্রীসভার প্রধান শুক্রবারে রাশিয়ার পাঁচটি টেলিভিশন চ্যানেলকে একসাথে একটি সাক্ষাত্কারের সময় দিয়েছেন. সাংবাদিকদের সঙ্গে কথাবার্তা হয়েছে চলে যেতে বসা বছরের ফলাফল নিয়ে, যে বছরের বেশীর ভাগ সময় দিমিত্রি মেদভেদেভ কাজ করেছেন প্রধানমন্ত্রী হিসাবে, আর তারই সঙ্গে ভবিষ্যতের জন্য পরিকল্পনা নিয়ে.

দেশের প্রধানের পদে প্রত্যাবর্তনের সম্ভাবনা নিয়ে মন্তব্য করে মেদভেদেভ বলেছেন:

“আমি খুব একটা প্রৌঢ় রাজনীতিবিদ নই, আমার সময়ের বেশ একটা সঞ্চয় রয়েছে, তাই আমার উচিত্ হবে কি, নিজের জন্য কোন একটা সম্ভাবনা বন্ধ করে দেওয়ার? অন্য ব্যাপার হল যে, আমি আগেও বহুবার বলেছি যে এটা নির্দিষ্ট সময়ে আমার ইচ্ছার উপরে নির্ভর করবে প্রাথমিক ভাবে আর এখানে উল্লেখ করব যে, আমি কখনোই কোন বছর উল্লেখ করি নি. আর অবশ্যই অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ হল – জনগনের ধারণা, তাঁরা কি এটা চাইবেন, তখন”.

দিমিত্রি মেদভেদেভ এই সাক্ষাত্কারের সময়ে বলেছেন যে, রুশ প্রজাতন্ত্র কারও সঙ্গে লড়াই করতে চাইছে না আর তাদের শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে মোট ব্যয়ের চেয়ে সামরিক ক্ষেত্রে বাজেটে ব্যয় বরাদ্দ কম. মেদভেদেভ স্বীকার করেছেন যে, রাশিয়া সত্যই সামরিক ক্ষেত্রে কম অর্থ বরাদ্দ করে নি, যা শুধু ২০১৩ সালেই হবে ২লক্ষ ১০ হাজার কোটি (প্রায় ৬হাজার ৮শো কোটি ডলারের সমান) রুবল, কিন্তু তিনি বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, এই খরচের প্রয়োজন ছিল, যাতে সামরিক বাহিনীতে কাজ করা আকর্ষণীয় হয় ও রাশিয়ার সামরিক কর্মীদের সামাজিক প্রয়োজন মেটানো সম্ভব হয়. এই প্রসঙ্গে মেদভেদেভ আশ্বাস দিয়েছেন যে, ২০২০ সালের মধ্যেই রাশিয়ার সামরিক বাহিনী নতুন আধুনিক অস্ত্র সজ্জিত হয়ে যাবে.

বিগত সময়ে দুর্নীতি সংক্রান্ত খুবই জোরালো সব ঘটনা নিয়ে প্রশ্নে মন্তব্য করতে গিয়ে মেদভেদেভ বলেছেন যে, সেই গুলি এক অত্যন্ত কঠিন কাজের শুরু মাত্র, যা দেশে করা হয়েছে. রাশিয়া টেলিভিশন চ্যানেল গুলিকে সাক্ষাত্কার দিতে গিয়ে রুশ প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন যে, এই কাজ, বোঝাই যাচ্ছে যে, শুধু একটি প্রতিধ্বনি তোলা ব্যাপার দিয়ে শেষ হবে না. একই সঙ্গে তিনি উল্লেখ করেছেন যে, বর্তমানে দুর্নীতি বিরোধী মামলা হল সরাসরি চলমান অবস্থা সেই সমস্ত কাজ কর্মেরই, যা বিগত বছর গুলিতে করা হয়েছে. মেদভেদেভ মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, দেশে দুর্নীতি বিরোধী আইন নেওয়া হয়েছে, আর সরকার আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী কনভেনশনের সঙ্গে যোগ দিয়েছে. প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আগে হোক বা পরেই হোক, এক সময়ে সংখ্যার বাহুল্য গুণেই পরিণত হয়.

যেমন জানানো হয়েছিল যে, ২০১২ সালের হেমন্তে রাশিয়াতে বেশ কয়েকটি দুর্নীতি বিরোধী তদন্ত শুরু করা হয়েছে, যা রুশ প্রজাতন্ত্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের থেকে বড় মাপের অর্থ বিলোপ করা নিয়ে চলছে এবং যে অর্থ পাঠানো হয়েছিল বিশাল জাতীয় পরিকল্পনার বাস্তবায়নের জন্যই.