আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি সরকারীভাবে এ খবর সমর্থন করেছে যে, ভারতের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির তত্ত্বাবধানে আয়োজিত সমস্ত অনুষ্ঠান থেকে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি সাময়িকভাবে সরে থাকছে. লোজানে মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকের প্রথম দিনের কাজের ফলাফল সংক্রান্ত খবরে বলা হয়েছে যে, এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণের কারণ হল জাতীয় অলিম্পিক কমিটির কাজকর্মে দেশের সরকারের হস্তক্ষেপ. আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির খবরে বলা হয়েছে, “কার্যনির্বাহী কমিটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সাময়িকভাবে ভারতের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির সদস্য-পদ সাময়িকভাবে স্থগিত রাখার, অলিম্পিক চার্টার এবং তার কামনার সুসঙ্গত হওয়ার অক্ষমতার জন্য এবং জাতীয় অলিম্পিক কমিটির নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সরকারের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে রক্ষাত্মক ব্যবস্থা হিসেবে নির্ধারিত সময়ে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটিকে জানানোর অক্ষমতার জন্য”, জানিয়েছে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সি. নির্বাচন, যার ফলাফলের ভিত্তিতে জাতীয় অলিম্পিক কমিটির নতুন পরিচালকমণ্ডলী নির্ধারিত হওয়ার কথা, পরিকল্পিত ছিল আজকের জন্য. আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটিতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, ভারতের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির, অংশতঃ, অধিকার নেই নির্বাচন পরিচালনা করার, “যতদিন অসমাধিত সব প্রশ্ন বিদ্যমান থাকবে”. নভেম্বরের শেষে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি সরকারী চিঠি পাঠিয়েছিল ভারতের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির কাছে, যাতে “জাতীয় অলিম্পিক কমিটির আসন্ন নির্বাচনে সরকারের হস্তক্ষেপে গুরুতর উদ্বেগ” প্রকাশিত হয়েছে. তাতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, নির্বাচনের আয়োজন পরিকল্পিতছিল সরকারের দ্বারা নির্ধারিত নিয়ম অনুযায়ী, জাতীয় কমিটির বা অলিম্পিক চার্টারে সূত্রবদ্ধ নিয়ম অনুযায়ী নয়.