মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা সোমবার সিরিয়ার সরকারকে সাবধান করে দিয়েছেন দেশে সরকারবিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অগ্রহণীয়তা সম্বন্ধে. ওবামার কথায়, সিরিয়ার সরকার যদি রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করে, যা অগ্রহণীয়, তাহলে তার পরিণতির সম্মুখীন হবে এবং তার দায়িত্বও গ্রহণ করতে হবে সিরিয়ার সরকারকে. আগে, সোমবার, হোয়াইট হাউজের প্রতিনিধি জে কারনি বলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহার সম্পর্কে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি আসদের সম্ভাব্য পরিকল্পনায় উদ্বিগ্ন. কারনি-র কথায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার সরকারের দ্বারা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের ক্ষেত্রে জরুরী কর্ম পরিকল্পনা প্রণয়ন করছে. তিনি সঠিক করে বলেন নি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে কোন্ কোন্ পদক্ষেপের কথা উঠছে. সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার ঘোষণা করেছে যে, সিরিয়ার সরকার কোনো পরিস্থিতিতেই রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করবে না. সংবাদ এজেন্সি “ফ্রান্স প্রেস” গত রাতে জানিয়েছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হাতে এমন তথ্য আছে যে, সিরিয়া বিষাক্ত জারিন গ্যাস উত্পাদনের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে. আগে মার্কিনী গোয়েন্দা বিভাগ এবং নিকট প্রাচ্যের দেশগুলির প্রতিনিধিরাও জানায় যে, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ রাসায়নিক অস্ত্রের ভাণ্ডার এবং তার উপাদানগুলি বিভাজিত করে দেশের ভিতরে ২০টি শহরে পাঠিয়েছে. তা করা হয়েছে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য. আগে, নভেম্বরেই, আম্মানে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ এ সম্ভাবনা বাদ দিয়েছেন যে, সিরিয়ার সরকার রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করতে পারে. জর্ডানের সহকর্মীর সাথে আলাপ-আলোচনায় রাশিয়ার কূটনীতিজ্ঞ জোর দিয়ে বলেন যে, মস্কোর কাছে দামাস্কাসের যথাযথ আশ্বাস আছে.