করাচি শহরে হিন্দু মন্দির ধ্বংসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ আন্দোলনে বেশ কিছু পাকিস্তানী হিন্দু অংশগ্রহণ করেছে. “বি.বি.সি” বেতারকেন্দ্র জানিয়েছে যে, মিছিলকারীরা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে যে, তাদের বাসের জায়গায় বুলডোজারের সাহায্যে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে পুরানো মন্দির, এবং তার আশপাশের বাড়ি. কর্তৃপক্ষ মন্দিরের অস্তিত্ব অস্বীকার করেছে এবং ঘোষণা করছে যে, এখানে বসবাস করা লোকেদের অন্য জায়গায় অপসারণ করা হয়েছে, কারণ তারা বেআইনীভাবে সামাজিক জায়গা অধিকার করে ছিল. কিছু কিছু তথ্য অনুযায়ী, বাড়িগুলি ধ্বংস করা হয়েছে আদালতের সিদ্ধান্ত এড়িয়ে. আদালত কর্তৃপক্ষকে লোকেদের অপসারণ করতে নিষেধ করেছিল.