দেশের আইনের ভিত্তি হিসাবে শরিয়তের আইনকেই স্বীকৃতি দিতে চেয়েছে মিশরের সংবিধান পরিষদ. বৃহস্পতিবারে এই বিষয়ে জানিয়েছে কায়রো থেকে রয়টার সংবাদ সংস্থা. এই পরিষদের বেশীর ভাগ সদস্যই ঐস্লামিকদের পক্ষে. খ্রীষ্টান গির্জা ও লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির থেকে মোট ২১ জন সদস্য এই পরিষদে কাজ করতে অস্বীকার করেছেন. এই সংবিধানের প্রকল্প নিয়ে সিদ্ধান্ত হলে, তা রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সিকে দেওয়া হবে তাঁর সমর্থনের জন্য, আর তারপরে সারা দেশ জুড়ে এই নিয়ে জনমত গ্রহণ করা হবে. মিশরের আগের সংবিধান হোসনি মুবারকের প্রশাসনের পতন ঘটানোর সময়ে ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে বাতিল করা হয়েছে.