গাজা অঞ্চলে অগ্নি-সংবরণ সম্বন্ধে কায়রো-তে যে আলাপ-আলোচনা চলছে, তা এখন গুরুতর পর্যায়ে পৌঁছেছে. এ সম্বন্ধে “মাআন” সংবাদ এজেন্সিকে বলেছেন “ফাথ” পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নাবিল শাত, যিনি আন্তর্জাতিক বিষয়গুলির দেখাশোনা করেন. এর প্রাক্কালে তিনি কায়রো-তে “হামাস” আন্দোলনের পলিটব্যুরোর প্রধান খালেদ মাশালের সাথে সাক্ষাত্ করেন, যিনি এ মতামত প্রকাশ করেন. একই সঙ্গে মাশাল অতি নিকট ভবিষ্যতে অগ্নি সংবরণের সম্ভাবনা বাদ দেন “ইস্রাইলের দ্বারা উত্থাপিত শর্তের, এবং প্যালেস্টাইনী শাখার দাবি পুরণে ইস্রাইলের অস্বীকৃতির” জন্য. বিশেষ করে, গাজা অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করা “হামাস” আন্দোলন এ অ়ঞ্চলের অবরোধ সম্পূর্ণভাবে তুলে নেওয়া এবং ইস্রাইলী বাহিনীর অনুপ্রবেশ বন্ধ করার দাবি করছে. তেল-আভিভ, নিজের তরফ থেকে, জোর দিচ্ছে দীর্ঘকালীন আপোষের এবং অবিলম্বে রকেট বর্ষণ বন্ধ করার. তাছাড়া, তারা আক্রমণের প্রস্তুতি সম্পর্কে খবর পাওয়ার ক্ষেত্রে এ অঞ্চলে জঙ্গীদের পশ্চাদ্ধাবনের অধিকার বজায় রাখতে চায়. আর অগ্নি সংবরণের সমঝোতার রাজনৈতিক গ্যারান্টি-দাতা হিসেবে ইস্রাইল দেখতে চায় মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহম্মেদ মুর্সি-কে. এ শর্ত যদি দু-তিন দিনের মধ্যে পুরণ করা না হয়, তাহলে ইস্রাইলের নেতৃবৃন্দ পূর্ণ পরিসরের যুদ্ধ শুরু করার হুমকি দিয়েছে. “ফাথ” পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য উল্লেখ করেন যে, “হামাস” আন্দোলনের নেতা ইঙ্গিত দিয়েছেন যে ইস্লামিক আন্দোলন মিশরের মধ্যস্থতায় আভ্যন্তরীন প্যালেস্টাইনী সংলাপ শুরু করতে প্রস্তুত, “তবে ইস্রাইলী আগ্রাসন বন্ধ হওয়ার পরেই”.