মিশরের দৃষ্টান্ত অনুযায়ী টিউনিশিয়াও গাজা অঞ্চলে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল পাঠাবে. আগে জানানো হয়েছিল যে মিশরের প্রধানমন্ত্রী হিশাম কান্ডিল সেখানে যাবেন সরেজমিনে পরিচিত হতে চান পরিস্থিতির সাথে. মিশরে ও টিউনিশিয়ায়, যেখানে জয়লাভ করেছে “আরব্য বসন্ত”, ক্ষমতায় এসেছে ইস্লামিক মহলের লোকেরা, যাদের মতাদর্শ “হামাসের” কাছাকাছি. উভয় দেশই ইস্রাইলী অভিযানের শুরু থেকেই প্যালেস্টাইনীদের পক্ষে ছিল. সামরিক অভিযান, ইস্রাইলীরা যাকে অভিহিত করছে ঘন ঘন রকেট বর্ষণের উত্তর বলে, আপাতত গাজা অঞ্চলে দূর থেকেই আঘাত হানাতেই সীমিত রয়েছে, তবে ইস্রাইলী কর্তৃপক্ষ স্থলভাগে অনুপ্রবেশের সম্ভাবনা বাদ দিচ্ছে না.