মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান রাষ্ট্রপতি, ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী বারাক ওবামা, ভোটদানের প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতির নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন রিপাবলিক্যান পার্টির প্রার্থী মিট রোমনি-কে পরাজিত করে. সংবাদ এজেন্সি “ব্লুমবার্গ” জানিয়েছে যে, জয়লাভের খবর জেনে ওবামা নিজের “টুইটারে” লেখেন: “আরও চার বছর” এবং উদ্ধৃত করেছেন ফোটো, যাতে তিনি স্ত্রীকে আলিঙ্গন করছেন. মস্কো সময় সকাল ৯টা (গ্রীনউইচ সময় অনুযায়ী ভোর ৫টা) পর্যন্ত ওবামা পেয়েছেন ২৯০টি ভোট নির্বাচক কলেজিয়ামের, অন্য দিকে রোমনি নির্বাচক কলেজিয়ামের ২০৩টি ভোটের সমর্থন পেয়েছেন. ডেমোক্র্যাটরা অগ্র-স্থানে ছিল ২৫টি রাজ্যে, রিপাবলিক্যানরা – ২৩টি রাজ্যে. জয়লাভের জন্য প্রার্থীর পাওয়া উচিত ছিল ৫৩৮টি নির্বাচক কলেজিয়ামের ভোটের মধ্যে অন্ততপক্ষে ২৭০টি ভোট. হোয়াইট হাউজ-কে এখন মীমাংসা করতে হবে একসারি অতি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা, উপরন্তু তার কয়েকটি, যেমন বাজেট সংক্রান্ত প্রশ্ন মীমাংসা করা দরকার অতি স্বল্প সময়ের মধ্যে. ওবামা শাসন ক্ষমতায় থাকার সময়ে, সম্ভবত সঙ্কট থেকে দেশকে সম্পূর্ণভাবে বার করে আনতে পারেন নি, কিন্তু সঙ্কট অতিক্রমের জন্য অনেক কিছুই করেছেন, প্রকৃতপক্ষে রাষ্ট্রীয় পুঁজিবাদের নীতি অনুসরণ করে. পররাষ্ট্র নীতির ক্ষেত্রে সাধারণ আমেরিকানদের সবচেয়ে বেশি উদ্বেগ জাগায় চীনের সাথে সম্পর্ক. তাদের অনুভূতি অনুযায়ী, ঐ দেশটিই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ধরে ফেলছে নিজের ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক ক্ষমতার সাহায্যে. দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের সমস্যা, যা ব্যাপক মার্কিনীদের চেতনায় মূর্ত হয়েছে “আল-কাইদায়”, তৃতীয় স্থানে – ইরান এবং তার সম্ভাব্য পারমাণবিক বোমা সংক্রান্ত সমস্যা, সিরিয়া এবং সাধারণভাবে গোটা নিকট প্রাচ্য. ওবামা-র জন্য তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ হয় ২০১৪ সালে আফগানিস্তানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক অভিযান শেষ করা. তাছাড়া, ওবামার পুনর্নির্বাচনের অর্থ হল রাশিয়ার সাথে সম্পর্কে “পুনরারম্ভের” ধারা বজায় রাখা. একই সঙ্গে ডেমোক্র্যাটরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মাঝে বিদ্যমান মতভেদে চোখ বন্ধ করে রাখতে চায় না, বরং তা “প্রত্যক্ষভাবে আলোচনা করবে রাশিয়ার সরকারের সাথে”.