“রুশ জাতীয়তাবাদীদের” রবিবারের মস্কো শহরের কেন্দ্রের মিছিল ও সমাবেশে কোন রকমের সিরিয়াস ঘটনা ঘটে নি. সংবাদ সংস্থা “ইন্টারফ্যাক্স” জানিয়েছে যে, এই সমাবেশ শেষ হয়েছে স্থানীয় সময় বিকেল চারটেয়, প্রশাসনের সঙ্গে এই রকমের চুক্তিই ছিল. মধ্য এশিয়ার দেশ গুলি থেকে রাশিয়াতে বহু শ্রমিক আসে বলেই সমাবেশে এই দেশ গুলির সঙ্গে ভিসা ব্যবস্থা চালু করার দাবী তোলা হয়েছে. একই সঙ্গে দাবী করা হয়েছে তথাকথিত “চরমপন্থী” প্রবন্ধ প্রকাশ সম্বন্ধে রুশ ফৌজদারী আইনের ধারা শিথিল করার (আন্তর্প্রজাতি বিরোধ বৃদ্ধি) ও রুশ জনগনকে তথাকথিত “রাষ্ট্রীয় মর্যাদা” দেওয়ার কথা. সমাবেশে বক্তৃতা করেছেন রুশ জাতীয়তাবাদী দল “রুশীর” নেতা দিমিত্রি দিওমুশকিন ও আলেকজান্ডার বেলভ, যারা এই সমাবেশের আয়োজন করেছিলেন. এই মঞ্চে একই সঙ্গে অন্যান্য দক্ষিণপন্থী চরমপন্থী দল গুলির প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন. আয়োজকদের মূল্যায়ন অনুযায়ী গত চার বছরের মধ্যে প্রথমবার মস্কো শহরের কেন্দ্রে আয়োজিত “রুশী মিছিলে” জড় হয়েছিলেন ২০ হাজার লোক. পুলিশের হিসেব মতো মিছিলের শুরুতে ছিলেন ছয় হাজার লোক. দেশের অন্যান্য শহরেও একই ধরনের মিছিল ও সমাবেশ হয়েছে. তবে সেখানে লোকসংখ্যা কম ছিল.