মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে এখন ২৪ ঘন্টারও কম সময় বাকি আছে.

পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলীয় এলাকায় স্থানীয় সময় ভোর ৬টায় ভোটগ্রহন শুরু হবে. সর্বশেষ জরিপে দেখা যাচ্ছে যে, বারাক ওবামা ও মিট রোমনির মধ্যে ভোটের ব্যবধান হবে খুবই সামান্য.

নির্বাচনের পাশাপাশি ঘুর্ণিঝড় স্যান্ডি’র সংবাদও গনমাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে. গত সপ্তাহে যা দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে.

ঘুর্ণিঝড়ে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এমন এলাকাগুলোতে বিদ্যুত সংযোগ স্বাভাবিক রাখতে আইপিএস সরবরাহ করা হয়েছে. সত্যিই তাই, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় অনেক এলাকাতে ঘুর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে সবকিছু লন্ডভন্ড হয়ে গেছে এবং সেখানে ভোটগ্রহনের জন্য সেনাবাহিনীর গাড়ি ব্যবহার করা হচ্ছে. ঘুর্ণিঝড় স্যান্ডি আঘাতহানার পর ভোটগ্রহনের দিন পরিবর্তন করার প্রস্তাব জানানো হলেও সরকার শধুমাত্র কিছু বাড়তি উদ্দ্যোগ গ্রহনের আশ্বাস দেয়. নিউইয়র্কে ভোটগ্রহন হয়তবা পুরো ১ দিন ধরে অনুষ্ঠিত হতে পারে এবং ব্যালোট পেপার গ্রহণের সময়ও বাড়ানো হয়েছে যা পূর্বে ডাকযোগে পাঠানো হয়েছিল. ভোট দেওয়ার আহবান জানিয়ে শহরে কোন বড় ধরণের বিলবোর্ড নেই. ভোটকেন্দ্রের সামনে কোন বিশেষ সংকেত চিহ্নও নেই. সঠিক ঠিকানা না জানলে আপনিও পাশ কাটিয়ে চলে যাবেন অনায়াসে. টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএনের জরিপে বলা হয় যে, ওবামা পাবেন ৪৮ ভাগ ভোট ও মিট রোমনি পাবেন ৪৭ ভাগ ভোট. রোডিও রাশিয়া কথা বলেছে নিউইয়র্ক শহরের বাসিন্দাদের সাথে. আমাদের সংবাদদাতাদের তাঁরা জানানঃ

“আমি ভোট দিব ওবামার পক্ষে. আমি সেনাবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা, আমি মনে করি ওবামা মিট রোমনির চেয়ে আমাদের জন্য বেশী ভাল কাজ করবেন”.

“আমার বাড়িঘর নেই এবং আমি ভোট দিতে পারব না. যদি দিতে পারতাম তাহলে রোমনির পক্ষে ভোট দিতাম. আমি ওবামাকে পচ্ছন্দ করি না. আমার মনে হয় তিনি আমাদেরকে ব্যাংক হুলিয়ায় নিয়ে যাবেন”.

“আমি ওবামার পক্ষে ভোট দিব. তিনি সংষ্কারপন্থি রাজনীতিবীদ. যদিও গত ৪ বছরে তার কাজের ফলাফলে আমি তেমন একটা খুশী নই কিন্তু ভয় হয় এই ভেবে যে, রোমনি এলে তা আরও খারাপ হবে”.

তবে ঘুর্ণিঝড় স্যান্ডি হয়তবা ওবামার জনপ্রিয়তা আরও একটু বাড়িয়ে দিয়েছে.

প্রথমত, আমেরিকার জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ ও নিউইয়র্ক শহরের মেয়র মাইকেল ব্লুমবের্গ ওবামার পক্ষে প্রচারনায় অংশ নিয়েছেন. তিনি কোন দলের সমর্থন করেন না এবং গত ৮ বছর রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে কোন প্রার্থীকে সমর্থন জানান নি. অন্যদিকে, স্যান্ডি আঘাতহানার পরই ওবামা সমর্থন জানানোর জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানায় প্রভাবশালী রিপাবলিক্যান ও নিউজার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিসটি. এবং সর্বশেষ বর্তমান রাষ্ট্রপতির পক্ষে সমর্থন জানিয়েছে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোলিন পাউয়েল যিনি রিপাবলিক্যান দল ক্ষমতায় থাকাকালিন দায়িত্ব পালন করেছেন. তিনি বলেন, “ওবামা যখন রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নিয়েছিল তখন দেশের অবস্থা অনেক শোচনীয় ছিল. কর পদ্ধতি একেবারে ভেঙ্গে পরার দ্বারপ্রান্তে চলে গিয়েছিল, ওয়াল স্ট্রিটে উত্কন্ঠা দেখা দিয়েছিল এবং বেকারত্বের হার ১০ ভাগে উন্নতি হয়েছিল. মটরগাড়ি ও নির্মাণ শিল্প ধ্বংসের উপক্রম হয়েছিল. কিন্তু কয়েক বছরে অর্থনীতি ও নির্মাণ ক্ষেত্রে পরিস্থিতি আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছে. সর্বোপরি, অবশ্যই, সন্ত্রাস দমনে ওবামার প্রচেষ্টা আমি উল্লেখ করতে চাই”.

বিশ্লেষকরা মনে করছেন যে, নির্বাচনে প্রতিটি ভোটের জন্য লড়াই করবেন ওবামা ও রোমনি. আশংকা করা হচ্ছে হয়তবা ২০০০ সালের ঘটনা আবার পুনরাবৃত্তি হতে পারে যখন হাতে ভোট গনান হয়েছিল. তখন জর্জ বুশ ও আলবের্ট গোরার মধ্যে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্য নিয়ে ভোটযুদ্ধ হয়েছিল. তবে এখন এ ধরণের পরিস্থিতি অনেক আসনের জন্যই হওয়ার সম্ভাবনা বেশী.