মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার পূর্ব উপকূলে সোমবার রাতে দেখা দেওয়া “স্যাণ্ডি” ঝড়ের শিকার হয়েছে অন্ততপক্ষে ১৩ জন. আগে জানানো হয়েছিল যে, এ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে মারা গিয়েছে নিউ-ইয়র্কের পাঁচজন বাসিন্দা. তাছাড়া নিহতদের মধ্যে আছে – নিউ-জার্সি শহর, মেরিল্যান্ড, পেনসিলভেনিয়া, কানেক্টিকাট রাজ্যের বাসিন্দারা এবং কানাডার টরোন্টো শহরের এক মহিলা. বেশির ভাগ ক্ষেত্রে লোক মারা যাওয়ার কারণ ছিল গাছ উপড়ে পড়া, পথ-সঙ্কেত ও বিজ্ঞাপনের বোর্ড ভেঙ্গে পড়া. এই “স্যাণ্ডি” ঝড় যখন উপকূলের কাছে পৌঁছোয় তার ক্ষমতা কমে সাধারণ ঝড়ের মতো হয়ে যায়, তবে তার শক্তি কমে যাওয়া –বিধিবদ্ধতা মাত্র. বাতাসের গতি কমছে না এবং প্রায়ই তা ঘণ্টায় ১৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত পৌঁছোচ্ছে. বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভূভাগে প্রায় ৩০ লক্ষ লোক বিদ্যুত্ সরবরাহ থেকে বঞ্চিত. নিউ-ইয়র্কে বিপুল জল-বৃদ্ধি পরিলক্ষিত হয়েছে – শহরের কিছু অঞ্চলে জলের মান চার মিটার পর্যন্ত বেড়েছিল, শহরের মেট্রো রেলপথের টানেল জলে ডুবে গিয়েছিল.