২১শে ডিসেম্বর ২০১২ এক নিরাপদ অন লাইন প্ল্যাটফর্ম টাইলার চালু করার কথা জানিয়েছে অ্যানোনিমাস বলে পরিচিত হ্যাকার গোষ্ঠী, সেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ বিভিন্ন দেশের সরকার নিজেদের নাগরিকদের আড়ালে রেখে যেসব গুরুত্বপূর্ণ খবরের কারণ হয়, তা প্রকাশ করা যাবে. এই সাইট ভবিষ্যতে স্ক্যান্ডাল বিখ্যাত উইকিলিক্স সাইটের প্রতিদ্বন্দ্বী হবে, অথবা সেটার বদলেই জায়গা করে নেবে. অ্যানোনিমাস গোষ্ঠীর প্রতিনিধি ই- মেল করে “রেডিও রাশিয়ার” সাংবাদিকের করা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে.

সাংবাদিক (সা): “কি ব্যাপারে টাইলার সাইট উইকিলিক্সের চেয়ে ভাল হবে”?

অ্যানোনিমাস (অ্যা): “প্রথমতঃ, টাইলার অনেক এই রকমের মঞ্চের মধ্যে শুধুমাত্র একটা প্ল্যাটফর্ম, যা অ্যানোনিমাস ও তাদের সপক্ষে থাকা গোষ্ঠীর লোকরা বানিয়েছে. খুব ভাল একটা প্রোজেক্ট রয়েছে পার-অ্যানোইয়া. গত বছরে আমরা চালু করেছি লোকাললিক্স ও হ্যাকারলিক্স সাইট গুলো, যেগুলি স্বাধীন গণ আন্দোলন সহায়তা করেছে. এই ধরনের প্রত্যেক সাইটের রয়েছে নানা রকমের শক্তিশালী দিক ও সব গুলিই বর্তমানে অ্যানোনিমাস দলের মিশনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ – সেটা হল, তথ্য তুলে ধারার জন্য ভরসাযোগ্য, কম দামী ও কেন্দ্র বিরহিত পদ্ধতি বের করা.

গোপন খবর ফাঁস করে দেওয়ার ব্যাপারে টাইলার যা অতুলনীয় ভাবে করে – এটা হল, তার কোন এক জায়গায় রেখে দেওয়া সার্ভার নেই. টাইলার সাইটে ব্যবহার করা হয়েছে কেন্দ্র বিরহিত অথবা পিয়ারিং নেটওয়ার্ক, এটা টাইলার সাইটকে বিটকয়েন অথবা অন্য ধরনের পিটুপি প্ল্যাটফর্মের মতো করে দিয়েছে, কারণ এই ধরনের প্ল্যাটফর্ম আক্রমণ অথবা বন্ধ করা সম্ভব নয়. এটা ঠিকই যে, তা কেন্দ্র বিরহিত করা হবে খুবই যত্ন নিয়ে”.

সা: “২১শে ডিসেম্বর ২০১২ দিনটিকে বেছে নেওয়ার জন্য কোন বিশেষ কারণ ছিল কি? কিছু লোক মনে করেন যে, এই দিনে মায়া সভ্যতার ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী গ্রহদের মিছিল হবে ও বিশ্বের শেষ দিন হতে চলেছে”.

অ্যা: “এটা ঠিক খবর, এই দিন বেছে নেওয়া হয়েছে যাতে মায়া কল্প কাহিনী অনুযায়ী বিশ্বের শেষ দিনের সঙ্গে একসাথে হয়, কিন্তু এটা করা হয়েছে বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য, সেই কারণে নয় যে, আমাদের মধ্যে কেউ এই কল্প কাহিনীতে বিশ্বাস করে”.

সা: “যদি উইকিলিক্স ভেঙে পড়ে, তবে আপনার মতে এটা জুলিয়ান আসাঞ্জ ও তার বর্তমানের পরিস্থিতির বিষয়ে কি কোন ভাবে প্রভাব ফেলবে”?

অ্যা: “এই প্রশ্নের উত্তর দিতে হলে আমাদের আগে সঠিক ভাবে বুঝতে হবে- উইকিলিক্স কি. সংবাদ মাধ্যমে ও বিশ্বেও এক বানানো গল্প ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে যে, উইকিলিক্স একটা বিশাল বড় সক্রিয় লোকদের গোষ্ঠী, যারা এই সংস্থার স্বার্থে কোন সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে. এটা একেবারেই ঠিক নয়. উইকিলিক্স - এটা জুলিয়ান আসাঞ্জের প্রকাশনা সংক্রান্ত ব্যবসা, যেটা তিনি নিজেই তৈরী করেছেন, তার মালিক এবং একক নিয়ন্ত্রক তিনি নিজেই. সুতরাং বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবক ও অল্প কিছু ছাত্রছাত্রীর জোট ছাড়া এটা কিছুই নয়. উইকিলিক্স ও জুলিয়ান আসাঞ্জ এটা একটাই চরিত্র.

কিছু সময় আগে জুলিয়ান ভয় দেখিয়েছিলেন যে, এই প্রকল্প বন্ধ করে দেবেন, কারণ তার আশানুরূপ ভাবে অর্থ সংগ্রহ হচ্ছিল না. তখনই আমাদের অ্যানোনিমাস গোষ্ঠী নিজেদের প্ল্যাটফর্ম তৈরীর কথা ভাবে, যেখানে গোপন খবর ফাঁস করে দেওয়া যেতে পারে. জুলিয়ানের উইকিলিক্স খুবই দরকার, আর তিনি নিজেই একমাত্র লোক, যে এই সাইট বন্ধ করতে পারে. আমি মনে করি যে, যতদিন পর্যন্ত তিনি নিজে কষ্টকর অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে থাকবেন, ততদিন এই সাইট বন্ধ করবেন না – যদিও তিনি নিজেই এর উল্টো করে সব রকমের ঘোষণা ও আশ্বাস দিচ্ছেন. কিন্তু এখানে একটা প্রশ্নের উদয় হয়: যদি উইকিলিক্স ও আসাঞ্জ একই হয় – তবে সেই প্রকল্পের কি হবে, যদি জুলিয়ান না থাকে? আমি মনে করি যে, এটা হবে উইকিলিক্সের শেষ”.

সা: “এক ধরনের ঘোষণা করা হয়েছিল যে, অ্যানোনিমাস পরিকল্পনা করেছে উইকিলিক্স সম্পর্কে গোপনীয় তথ্য প্রকাশ করার. আপনি এই সব তথ্য সম্বন্ধে বিশদ করে কি কিছু বলতে পারেন, কি ধরনের গোপন খবর ফাঁসের কথা হচ্ছে এখানে”?

অ্যা: “আমাদের গোষ্ঠী ঘোষণা করেছে যে, আমরা সেই সব বিষয়ে খুঁটিয়ে খবর দেবো, যা আমাদের মনে হয়েছে উইকিলিক্সের তরফ থেকে মানবিক আচরণের বিরুদ্ধে করা হয়েছে ও যে সব বিষয়ে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে. কোন রকমের ঘোষণা যে, আমাদের কাছে উইকিলিক্স নিয়ে কোন গোপন তথ্য আছে, আর আমরা তা ফাঁস করে দেবো, তা কখনও করা হয় নি.

সেই তথ্য যা আমরা প্রকাশ করতে চাই, এটা হয় আইন সম্মত তথ্য, অথবা উইকিলিক্স থেকে তথ্য, যা ব্যক্তিগত ভাবে ব্যবহারের জন্য লাগে, যা আমাদের কাছে এসেছে – যেমন উইকিলিক্স সাইটের টাকা পয়সার হিসেব. আমরা এই গুলি এখনও পাই নি, কিন্তু যদি তা আমাদের দেওয়া হয়, আমরা অবশ্যই তা প্রকাশ করব. যে সংস্থা সারা বিশ্বের জন্যই স্বচ্ছতার দাবী করেছে, তাদের নিজেদেরই সবার আগে হওয়া উচিত্ স্বচ্ছ”.