দামাস্কাস আশা করে, অন্ততপক্ষে ঈদ আল-অধ উত্সবের সময় যুদ্ধ থামানো সম্ভব হবে. এ সম্বন্ধে “রেডিও রাশিয়া” বেতার-কেন্দ্রকে বলেছেন সিরিয়ার জাতীয় আপোষ সংক্রান্ত মন্ত্রী আলি হায়দার. ২৬-২৮শে অক্টোবর ঈদ উত্সবের সময় অগ্নি সংবরণের উদ্যোগ প্রকাশ করেন সিরিয়া সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব রাষ্ট্র লীগের বিশেষ প্রতিনিধি লাখদার ব্রাহিমি. সিরিয়ার মন্ত্রীর কথায়, যুদ্ধ থামানো সহজ নয়. এজন্য জঙ্গীদের কাছ থেকে অস্ত্র বজেয়াপ্ত করতে হবে, দেশের ভিতরে সন্ত্রাসবাদী ঘাঁটি ও চক্রগুলিকে নিষ্ক্রিয় করতে হবে, আর তাছাড়া সিরিয়ায় সন্ত্রাসবাদীদের জন্য পাঠানো অস্ত্রশস্ত্র আসার পথ বন্ধ করতে হবে. তাছাড়া, কয়েক দিনের জন্য অগ্নি সংবরণ সমস্যার মীমাংসা নয়. আলি হায়দার জোর দিয়ে বলেন, “তা যেন সঙ্কটের শান্তিপূর্ণ মীমাংসার স্ট্র্যাটেজি-তে পরিণত হয়”. সশস্ত্র বিরোধীপক্ষ সম্বন্ধে বলা যায় যে, তা স্বতন্ত্রভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে না. আর যারা তাদের সমর্থন করছে, তারা যুদ্ধ বন্ধ হতে দিতে চায় না. মন্ত্রী মনে করেন যে, কাতার এবং সৌদি আরব নির্বাহকের ভূমিকা পালন করছে, আর সিরিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের “ফরমাশ-দাতারা” হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপ. তারা কথায় বলছে শান্তিপূর্ণ মীমাংসার কথা, কিন্তু এ দিকে বাস্তবিক কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না. আর তুরস্ক সম্বন্ধে বলা যায় যে, “রাশিয়ার পথ বন্ধ করে দেবে, যদি সে সিরিয়া সম্পর্কে নিজের স্থিতি না বদলায়”, তার এমন হুমকি অর্থহীন. রাশিয়া এমন দেশ নয়, যাকে কোনো কিছু করতে বাধা দেওয়া যায়, জোর দিয়ে বলেন হায়দার “রেডিও রাশিয়া”-কে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে.