পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রহমান মালিক “তেহরিক-এ-তালিবান পাকিস্তান” দলের প্রধানকে ধরার জন্য ১০ লক্ষ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছেন, যে মালালা ইউসুফজাই নামে মেয়েটিকে হত্যার প্রচেষ্টার জন্য দায়িত্ব গ্রহণ করেছে. তিনি “সি.এন.এন” টেলি-কোম্পানিকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন যে, হত্যার ষড়যন্ত্র প্রস্তুত করেছিল তালিবদের প্রধান মোল্লা ফুদ্রুল্লা, যে আফগানিস্তানে পালিয়েছে, যখন পাকিস্তানী বাহিনী সোয়াত উপত্যকায় সন্ত্রাসবিরোধী চালিয়েছিল. মন্ত্রী আরও বলেন যে, পাকিস্তানের আইন ও শৃঙ্খলা রক্ষা সংস্থা ইতিমধ্যে চার জনকে গ্রেপ্তার করেছে, যারা ১৪ বছর বয়সী মেয়েটিকে আক্রমণের সাথে জড়িত. মালিক দেশে সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে পাকিস্তানী কর্তৃপক্ষের স্থিরনিশ্চয়তার কথা জোর দিয়ে বলেন. মন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, “পাকিস্তানের জনগণ “তালিবান”-কে চায় না, তারা চরমপন্থাকেও চায় না”.