রাশিয়া-ভারত বাণিজ্যিক-অর্থনৈতিক, বৈজ্ঞানিক-প্রযুক্তিগত ও সাংস্কৃতিক সহযোগিতা সংক্রান্ত অষ্টাদশ আন্তঃসরকারী কমিশনের বৈঠক আজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে নয়া-দিল্লিতে রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি রগোজিন এবং ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস.এম.কৃষ্ণ-র সভাপতিত্বে. এ বৈঠকের আগে রাশিয়ার কূটনীতিজ্ঞ ভারতের প্রতিরক্ষাত্মক গবেষণা ও উদ্ভাবনী সংস্থার সদর দপ্তর পরিদর্শন করবেন. দমিত্রি রগোজিনের কথায়, আলাপ-আলোচনার সময় তিনি ভারতকে প্রস্তাব দিতে চান মিলিতভাবে ছয় টন মাল বহণে সক্ষম হালকা পরিবহণ বিমান তৈরি করার, যা বহু কর্তব্য সাধনের পরিবহণ বিমানের প্রকল্পের অনুরূপ, যে প্রকল্পের নক্সা নিয়ে কাজ করছে রাশিয়ার “ঐক্যবদ্ধ বিমান নির্মাণ কর্পোরেশন” এবং “হিন্দুস্তান এয়ারোনটিক্স লিমিটেড”. তাঁর কথায়, “ইতিমধ্যে যথাযথ প্রকল্প আছে – ইল-১১২, যা টেকনিক্যাল ডকুমেন্টেশনের পর্যায়ে রয়েছে”. তিনি যোগ করে বলেন, “তাছাড়া কথা হতে পারে তার মিলিতভাবে উত্পাদনের এবং পরবর্তীতে রাশিয়া, ভারত এবং তৃতীয় দেশের বাজারে তার রপ্তানির”. তাছাড়া পক্ষদ্বয় বিকাশের, সেই সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সহযোগিতার আরও বিকাশের পরিকল্পনা আলোচনা করতে চায়. এ প্রসঙ্গে রগোজিন ঘোষণা করেন যে, রাশিয়া ও ভারত “পথ মানচিত্র” তৈরি করবে, যা দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সহযোগিতার প্রত্যেক ধারা সক্রিয় করে তোলার সুযোগ দেবে. তিনি উল্লেখ করেন, “রাশিয়া ও ভারতের মাঝে বাণিজ্যের বর্তমান পরিমাণ মোটেই যথেষ্ট নয়”. সামরিক-প্রযুক্তিগত সহযোগিতার কথায় এসে রগোজিন ব্যাখ্যা করে বলেন যে, ভারত আজ প্রত্যক্ষভাবে অস্ত্র কেনা থেকে যৌথ উত্পাদনে উত্তীর্ণ হতে চেষ্টা করছে, আর রাশিয়া এ স্থিতি সমর্থন করে. বৈঠকের ফলাফলের ভিত্তিতে শেষ প্রটোকল স্বাক্ষরিত হবে, তার পরে দমিত্রি রগোজিন সাক্ষাত্ করবেন প্রধানমন্ত্রী শ্রীমনমোহন সিংয়ের সাথে, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী আনন্দ শর্মার সাথে এবং অংশগ্রহণ করবেন রুশ-ভারত বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্মেলনে.