অক্টোবরের মধ্যে “বিক্রমাদিত্য” (প্রাক্তন “অ্যাডমিরাল গর্শকোভ”) বিমানবাহী জাহাজের আধুনিকীকরণ শেষ করার কাজের সর্বসম্মত ও অনুমোদিত নির্ঘন্ট ভারতীয় পক্ষকে দেওয়া হবে, রবিবার দিল্লিতে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি রগোজিন. তিনি বলেন, “ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রযুক্তিগত কর্তব্যের দ্বারা নিরূপিত আধুনিকীকরণের কাজের তালিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং তাতে বিপুল মনোযোগ দেওয়ার প্রয়োজন ছিল. প্রযুক্তিগত কর্তব্য বলতে বোঝায় একেবারে নতুন ব্যবস্থা ও সরঞ্জাম বসানো, সেই সঙ্গে তৃতীয় দেশ থেকে সরবরাহ করা সরঞ্জাম. জাহাজ চালনার সময় প্রকটিত হওয়া সমস্যাগুলি তারই মধ্যে পড়ে”. তিনি উল্লেখ করেন যে, “নতুন প্রকৌশলের প্রতি অভিযোগ সর্বদাই থাকে. পুরোনো সরঞ্জাম সমাবেশে (প্রথমে যেমন ছিল)যদি জাহাজ সরবরাহ করা হত তাহলে প্রশ্ন থাকত না”. তাঁর কথায়, ভারতীয় বিশেষজ্ঞ ও জাহাজের কর্মীরা, যাঁরা জাহাজ চালনার পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন, প্রযুক্তিগত কর্তব্য সাধনের সময়ে দেখা দেওয়া সমস্যাগুলি বোঝেন. দমিত্রি রগোজিন জোর দিয়ে বলেন, “এই “বিক্রমাদিত্য” জাহাজ তার মুখ্য কর্তব্য ফলপ্রসূভাবে পুরণ করতে সক্ষম, আর এ সব কাজ সময় মতো পালন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আর আরও গুরুত্বপূর্ণ – গুণগত উচ্চ মানে তা পালন করা. আমার স্থিরবিশ্বাস যে, ভারত গর্ব অনুভব করবে যে, তার নৌবাহিনীতে এমন জাহাজ দেখা দিচ্ছে, কারণ ভারত পাবে অনুপম, নিখুঁত জাহাজ, যা তার প্রতিরক্ষা ক্ষমতা যথেষ্ট বাড়াবে”.