রাশিয়ার বিমান পরিবহন কোম্পানী গুলি এই বছরেও পরিবহনের ক্ষেত্রে দ্রুত পরিমান বাড়িয়েছে. গত নয় মাসে তারা পরিষেবা দিয়েছেন পাঁচ কোটি ৭০ লক্ষ যাত্রীকে. এই ধরনের তথ্য মস্কো শহরে অনুষ্ঠিত রাশিয়ার ডানা নামের সম্মেলনে উচ্চারিত হয়েছে.

বিশেষ করে লক্ষ্যণীয় হয়েছে আন্তর্জাতিক সেক্টরে পরিবহনে উন্নতি. বিগত বছর গুলিতে রাশিয়াতে যাত্রী ও মাল পরিবহন খুবই দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে.

মাল পরিবহনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী সম্ভাবনা রয়েছে ট্রানজিট মাল বহনের বিষয়ে, এই কথা উল্লেখ করে আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন সংগঠনের বিশেষজ্ঞ দিমিত্রি শামরায়েভ বলেছেন:

“রাশিয়ার মাল পরিবহনের কোম্পানী গুলি সেই সমস্ত পরিবহনের ক্ষেত্রেই ভাল ব্যবসা করছে, যেগুলিতে সকলে করে থাকে. এটা দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া থেকে ইউরোপ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র. রাশিয়া হয়ে মাল পরিবহনের ক্ষেত্রে সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল. দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া থেকে মাল পরিবহনের বাজার খুব বড়. নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষের ও কম্পিউটার প্রযুক্তির এক বড় অংশ এই সব দেশেই বেশী করে তৈরী হয়. আমি মনে করি যে, রাশিয়ার মাল পরিবহন কোম্পানী গুলি খুব ভাল পরিষেবা প্রস্তাব করতে সক্ষম, আর তার জন্য দামের শর্তও ভাল”.

বিমান পরিবহন কোম্পানী গুলির কাছে কি ধরনের বিমান বেশী থাকা উচিত্ রাশিয়াতে তৈরী নাকি বিদেশী – এই নিয়ে বিতর্কও চলছে. রাশিয়ার বিমান নির্মাণ শিল্প দ্রুত উন্নতি করছে. তা স্বত্ত্বেও ২০১১ সালে বিদেশ থেকে ১৪০টি বিমান আনা হয়েছে, আর গত পাঁচ বছরে ৫৬০টি বিমান, এই কথা উল্লেখ করে রাশিয়ার উপ পরিবহন মন্ত্রী ভালেরি অকুলভ বলেছেন

“রাশিয়ার বিমান পরিবহন কোম্পানী গুলি অনতিপূর্ব রকমের বিমান সংখ্যা প্রসারিত ও বৃদ্ধি করেছে. এটা সেই বিষয়েই সাক্ষী হয়েছে যে, আমাদের দেশে কত দ্রুত ও বেশী করে বিগত বছর গুলিতে বিমান পরিবহন শিল্পের উন্নতি হয়েছে”.

ধীরে পাইলটের চাহিদাও কমছে. এর জন্য পাইলটদের কোন বিশেষ দেশের নাগরিক হওয়া সংক্রান্ত নতুন আইন গ্রহণ করা হচ্ছে. এই দলিল গৃহীত হলে রাশিয়ার কোম্পানী গুলি বিদেশ থেকে সেই সমস্ত পাইলটদের আমন্ত্রণ করতে পারবেন, যারা রাশিয়ার নাগরিক নন. রাশিয়ার লোকসভা এই আইন গ্রহণ করলে সারা বিশ্ব থেকেই রাশিয়ার বিমান পরিবহন কোম্পানী গুলি পাইলট নিয়োগ করতে পারবেন.